শুক্রবার ৬ কার্তিক, ১৪২৮ ২২ অক্টোবর, ২০২১ শুক্রবার

শামীম ওসমান প্রসঙ্গ,পাল্টা বিবৃতিতে মেয়র আইভী

অনলাইন ডেস্ক : বাবা – মাসহ পরিবারের সদস্যদের কবরে পাশের শ্মশান থেকে মাটি দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ শামীম ওসমান।

গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টায় মাসদাইরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন কেন্দ্রীয় কবরস্থান পরিদর্শন শেষে এ অভিযোগ করেন তিনি। এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী। এক বিবৃতিতে তিনি জানান, শামীম ওসমানের স্বজনদের কবরে শ্মশানের মাটি ফেলা হয়নি। তাঁর স্বজনদের কবর ভরাট করা হয়েছে অন্য স্থান থেকে মাটি এনে ।

শামীম ওসমান জানান, আমি একটি কথা বলতে চাই, যারা এই খেলা খেলছেন, আপনারা মৃত্যুকে ভয় করেন। যেই ধর্মের হন না কেন মৃত্যুর শেষে আপনাকে যেতেই হবে। আপনারা যত চেষ্টা করেন না কেন, আমি ধৈর্যশীল আছি। আরও বলেন, প্রতিটি ধর্মের রীতি-নীতি আছে। আমাদেরকে কাজ করা উচিৎ এই রীতি মেনেই । আমরা মসজিদের সামনে, মসজিদের ভেতরেও কোরবানি দিতে পারি। কিন্তু মন্দিরের ভেতরে কোরবানি দিতে পারি না। আর যে দেয় সে হলো সাম্প্রদায়িক সে অসাম্প্রদায়িকতা নষ্ট করতে চায়। এই কাজটি ঠিক এ রকমই একটি কাজ। শ্মশানের মাটিগুলো এনে কবরস্থানে দিয়ে দেওয়া হয়। যেটা মানুষ মানতে পারে না। এটা ধর্মীয় অনুভূতিতে চরম আঘাত এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করা হয়।

এ সংসদ জানান , আমি তো ভেবেছিলাম নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সিইও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা থাকবেন। আইভীর কথা বলব না আমি কারণ তাঁর মা মারা গেছেন। এখানে আসার মানসিক অবস্থা তাঁর আছে বলে আমি মনে করি না। কিন্তু সিইও কোথায় কিংবা নির্বাহী প্রকৌশলী কোথায়? যার তত্ত্বাবধানে এ কাজ হয়েছে। যাদের কারণে আজকে বোঝা যাচ্ছে না কার মরদেহ কোনখানে। কোথায় তাঁরা? তাঁদের তো থাকা উচিৎ ছিল। অবশ্যই এ বিষয়ে তদন্ত হবে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ বলে আমি মনে করছি।

এদিকে আইভীর স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শামীম ওসমানের স্বজনদের কবরে শ্মশানের মাটি ফেলা হয়নি। প্রয়াত সংসদ নাসিম ওসমানের কবর অপেক্ষাকৃত নিচু।তিনি সেখানে পানি জমে থাকার আশঙ্কা করে পারভীন ওসমান তাঁদের পারিবারিক আত্মীয় জনৈক নাসিরকে মাটি ফেলার জন্য পাঠান। নাসির বাইরে থেকে মাটি এনে শামীম ওসমানের ভাইসহ স্বজনদের কবর ভরাট করেন। এ কাজে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন কর্তৃক নিযুক্ত কেয়ারটেকার সামসুদ্দিন সহযোগিতা করেছেন।

আরও বলা হয়, নাসির যে মাটি দিয়ে কবরস্থান ভরাট করেছেন, তার রং সাদা। কিন্তু শ্মশানের পুকুরের মাটির রং লাল। উপরিউক্ত সত্যকে আড়াল করে সংসদ শামীম ওসমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের হীন উদ্দেশ্যে এ অভিযোগ ও বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে মেয়র বলেন, নারায়ণগঞ্জের কেন্দ্রীয় কবরস্থান এলাকায় পাশাপাশি ৪টি ধর্মের অনুসারীদের দাফন, শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়।যা সারা বিশ্বে বিরল এবং নারায়ণগঞ্জবাসীর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বাক্ষর বহন করে।

বিষেরবাঁশী .কম / ডেস্ক / ঝিনুক

Categories: নারায়ণগঞ্জের খবর

Tags:

Leave A Reply

Your email address will not be published.