শনিবার ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৩ ডিসেম্বর, ২০২২ শনিবার

২ বছরের শিশুর পেটে মানবভ্রুণ

অনলাইন ডেস্ক :-চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালে মুরসালিন নামের দুই বছর বয়সী শিশুর পেট থেকে মানবভ্রুণ আকৃতির একটি মাংসপিণ্ড বের করা হয়েছে।

বুধবার (৭ জুলাই) টিউমার সন্দেহে অপারেশনের পর শিশুর পেট থেকে এই ভ্রুণটি বের হয়ে আসে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। শিশুটি গর্ভে থাকাকালীন সময় থেকেই এই ভ্রুণটি মুরসালিনেরে পেটে ছিলো বলে চিকিৎসকরা নিশ্চিত হয়েছে।

শুক্রবার (৯ জুলাই) দুই বছর বয়সী শিশুর পেটে মানবভ্রুণ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. আবদুল্লাহ আল ফারুক।

ডা. আবদুল্লাহ আল ফারুক জানান, ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে শিশু মুরসালিন জন্ম নেয়। শিশুটির জন্মের পর থেকেই তার পেট স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বাড়তি ফোলা ছিলো। জন্মের কিছুদিন পর থেকেই পেটের ফোলা বৃদ্ধি পায় এবং শিশুটির পেট ব্যথা শুরু হয়। পেট ব্যথার চিকিৎসা নিতে শিশুটিকে গত ১৯ মে প্রথম চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। শিশু বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে এই শিশুটির প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিরিক্ষায় মুরসালিনের পেটে টিউমার রয়েছে বলে চিকিৎসকরা ধারণা করেন। গত বুধবার এই টিউমার অপারেশনের তারিখ নির্ধারিত ছিলো।

বুধবার শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. আবদুল্লাহ আল ফারুকের তত্ত্বাবধানে শিশুটির পেট অপারেশনের পর তার পেট থেকে মানবভ্রুণ আকৃতির একটি মাংস পিণ্ড বের করে আনেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকরা জানান এটি একটি বিরল ঘটনা। শিশুটি যখন মায়ের গর্ভে ভ্রুণ হিসেবে ছিলো তখন এই ভ্রুণের ভিতর আরও একটি ভ্রুণ ঢুকে পরে। যা চিকিৎসকদের ভাষায় ফেটাস ইন ফেটু নামে অবিহিত। দুই বছর ধরে এই ভ্রুণটি শিশু মোরসালিনের পেটে বড় হয়েছে। অপারেশনটি ছিলো অনেক জটিল। শিশুর পেট থেকে এই ভ্রুণ অপারেশনের পর শিশুটি পুরোপুরি শঙ্কামুক্ত। কয়েকদিনের মধ্যেই হাসপাতাল থেকে শিশুটি বাড়ি ফিরে যেতে পারবে বলে চিকিৎসকরা আশা প্রকাশ করেছেন।

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/আয়েশা

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.