বৃহস্পতিবার ৩০ বৈশাখ, ১৪২৮ ১৩ মে, ২০২১ বৃহস্পতিবার

কত টাকার মালিক রাজ-শুভশ্রী?

অনলাইন ডেস্ক:-কলকাতার সিনে ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম পাওয়ার কাপল রাজ চক্রবর্তী ও শুভশ্রী গাঙ্গুলি। এ নির্মাতা ও অভিনেত্রী জুটির ঝুলিতে রয়েছে অনেক হিট সিনেমা।

সম্প্রতি বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন রাজ। সে সূত্রে তাদের সম্পত্তির হিসাব জমা দিতে হয়েছে। সেখানে দম্পতির স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির বিবরণ ওঠে এসেছে।

২০১৯-২০ অর্থ বছরে রাজের উপার্জন ছিল ৫৪ লাখ ২৭ হাজার ৯৭০ রুপি। তার স্ত্রী শুভশ্রী উপার্জন করেছিলেন ১ কোটি ১৭ লাখ ২২ হাজার ৮৮০ রুপি। তাদের ওপর নির্ভরশীল হিসেবে সন্তান ইউভানের নাম উল্লেখ করেছেন রাজ।

বিভিন্ন ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে রাজের নামে আছে যথাক্রমে ১ লাখ ১১ হাজার ৮৩৫ রুপি ৮ পয়সা, ২২ হাজার ১৮৭ রুপি ১৮ পয়সা, ৬ হাজার ৪৭৫ রুপি ৪৮ পয়সা, ৩৫ হাজার ৫৮৪ রুপি ২২ পয়সা, ১৪ হাজার ৪৭৫ রুপি ৮৩ পয়সা, ৭ হাজার ৪১৪ রুপি ৮৯ পয়সা এবং ৮ হাজার ৭৩৮ রুপি ৬১ পয়সা।

শুভশ্রীর নামে ব্যাঙ্কের বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে গচ্ছিত আছে ৫ লাখ ৮ হাজার ৭৪৭ রুপি ১১ পয়সা, ২ হাজার ৬৭২ রুপি ৫৭ পয়সা, ২৪ লাখ ৪২ হাজার ৬১১ রুপি ৭৯ পয়সা এবং ২৪ লাখ ১৫ হাজার ৪২৮ রুপি ১০ পয়সা।

৮টি স্থায়ী আমানতে রাজ রেখেছেন ৫ লাখ রুপি করে। শুভশ্রীর নামে রয়েছে ৫৭টি স্থায়ী আমানত। গচ্ছিত রয়েছে প্রায় আড়াই কোটি রুপি।

শেয়ারবাজারে রাজ কিছু বিনিয়োগের কথা উল্লেখ করেননি। শুভশ্রীর কাছে রয়েছে ৯ লাখ রুপির বেশি বন্ড।

একাধিক বিমা করেছেন রাজ। নির্ধারিত সময়ের পরে সেগুলো থেকে পাওয়ার কথা যথাক্রমে ২০ লাখ রুপি, ৭ লাখ ৩৯ হাজার ৮৯৪ রুপি, ২০ লাখ রুপি, ১০ লাখ রুপি, ১০ লাখ রুপি, ৫০ লাখ রুপি, ২ লাখ ৫০ হাজার রুপি, ১০ লাখ এবং ৫০ লাখ রুপি।

শুভশ্রীও বেশ কিছু বিমার ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করেছেন। নির্দিষ্ট সময়ের পর সেখান থেকে পাওয়া যাবে যথাক্রমে ১৬ লাখ ২৮ হাজার ২৪৩ রুপি, ২৩ লাখ ৯৪ হাজার রুপি, ৩ লাখ ১ হাজার ৮৯০ রুপি, ১০ লাখ রুপি, ৬০ লাখ রুপি এবং ৪ লাখ রুপি।

দুটি গাড়ি আছে রাজের। ২০১৯ সালে কেনা ভলভো সংস্থার গাড়ির দাম ৮০ লাখ ২৭ হাজার ৪৯১ রুপি এবং ২০১৮ সালে কেনা টাটা নেক্সনের দাম ৮ লাখ ৭৪ হাজার ৫৩৭ রুপি। শুভশ্রীর নামে কোনো গাড়ি নেই।

রাজের কোনও মূল্যবান গয়না নেই। শুভশ্রীর কাছে থাকা ১৮৬.৯৭ গ্রাম সোনার গয়নার দাম ৫২ লাখ ৩৩ হাজার ৬৮৩ রুপি ৭৯ পয়সা।

হালিশহরে ১৩ হাজার ৫০৩.৬ বর্গফুটের একটি জমি আছে রাজের। ২০১২ সালে জমিটি তিনি কিনেছিলেন ১১ লাখ ২৬ হাজার ৬৫৩ রুপিয়। জমিটির বর্তমান বাজারদর প্রায় ৬৮ লাখ ৭৩ হাজার ৩৩২ রুপি।

ব্যবসায়িক কারণে রাজডাঙা মেন রোডে একটি বাড়ি কিনেছেন রাজ। ২০১৬ সালে বাড়িটি কিনতে খরচ হয়েছিল ১ কোটি ৮৩ লাখ ৩১ হাজার ২৬১ রুপি। বাড়িটির বর্তমান বাজারদর প্রায় ১ কোটি ৬৫ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮০ রুপি।

রাজ এবং শুভশ্রী থাকেন আনন্দপুরের আরবানা আবাসনে। ২০১০ সালে সেখানে ফ্ল্যাট কিনেছিলেন ১ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮৬০ রুপিয়। ফ্ল্যাটের বর্তমান বাজারদর প্রায় ২ কোটি ১ লাখ ৫৩ হাজার ৫০০ রুপি।

মোটা অঙ্কের ব্যাঙ্কঋণও চলছে রাজের নামে। ১ কোটি ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৯৫৮ রুপির গৃহঋণ এবং ৪৬ লাখ ৬৯ হাজার ৪৩০ রুপির গাড়ির ঋণ চলছে তাঁর।

স্ত্রীর কাছ থেকেও ১০ লাখ রুপির ঋণ নিয়েছেন বলে হলফনামায় জানিয়েছেন রাজ।

শুভশ্রীও ঋণ নিয়েছেন। তবে কোনও ব্যাঙ্কে নয়। তিনি ঋণ করেছেন ৩ জন ব্যক্তি এবং একটি সংস্থার কাছে। তাঁর ঋণের অঙ্ক যথাক্রমে ১ লাখ ৮৬ হাজার রুপি, ২৭ লাখ ৯০ হাজার ১০০ রুপি, ৭ লাখ ৫০ হাজার রুপি এবং ১০ লাখ রুপি।

২০০০ সালে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছেন রাজ। পরিচালনা ও প্রযোজনার পাশাপাশি তিনি নিজেকে ব্যবসায়ী বলেও পরিচয় দিয়েছেন। তাঁর স্ত্রী পেশাদার অভিনেতা।

রাজের নামে অস্থাবর সম্পত্তির মূল্য ৩ কোটি ৩৯ লাখ ৩১ হাজার ৭৫ রুপি ১৯ পয়সা। স্ত্রী শুভশ্রীর অস্থাবর সম্পত্তি আছে ৫ কোটি ৫৫ লাখ ৭ হাজার ৯৯৬ রুপি ৩৬ পয়সার।

রাজের স্থাবর সম্পত্তির বর্তমান বাজারদর ৪ কোটি ৩৫ লাখ ৬৩ হাজার ৩১২ রুপির। শুভশ্রীর নাম কোনো স্থাবর সম্পত্তির উল্লেখ নেই হলফনামায়।

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/আয়েশা

Categories: বিনোদন

Leave A Reply

Your email address will not be published.