রবিবার ২২ ফাল্গুন, ১৪২৭ ৭ মার্চ, ২০২১ রবিবার

২২ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন যে দম্পতি২২ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন যে দম্পতি

অনলাইন ডেস্ক:-পৃথিবীতে বাড়ছে জনসংখ্যার চাপ। ফলে জন্ম নিয়ন্ত্রণে দেশে দেশে চালু আছে নানা ধরনের কর্মসূচি। তবে পশ্চিমা দুনিয়ায় সন্তান জন্মহার এমনিতেই কম, এর মধ্যে ইংল্যান্ডের এক নারীর ২২ সন্তান জন্মদানের বিষয়টি সামনে এনেছে চ্যানেল ফাইভ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সান জানায়, ৪৫ বছর বয়সী সু র‌্যাডফোর্ড ইংল্যান্ডের ল্যাঙ্কাশায়ারের উপকূলীয় শহর মোরেক্যাম্বের বাসিন্দা। ব্রিটেনের সবচেয়ে বড় পরিবারের মা হিসেবে পরিচিত এ নারী। স্বামী নোয়েল র‌্যাডফোর্ড আর ২২ সন্তান নিয়ে তাদের সুখের সংসার।

লকডাউনেই সু তার ২২তম সন্তানের সন্তানের জন্ম দেন। সেটি ছিল একটি মেয়ে শিশু, সেটি সহ ১১টি মেয়ে র‌্যাডফোর্ড দম্পতির। তাদের বড় সন্তান ক্রিসের বয়স ৩১ বছর।

সু বলছেন, ‘গর্ভধারণের পর প্রথম স্ক্যানটি সব সময় উত্তেজনা তৈরি করে করে, যখন আপনি দেখতে পাবেন ছোট হার্টবিটটি সাড়া দিচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘এটা পুরাই ম্যাজিকাল। প্রথম নাকি ২২তম গর্ভধারণ সেটি কোনো ব্যাপার না।’

এত সন্তান গর্ভধারণ করতে সারা জীবন তার সাড়ে ১৬ বছর কেটেছে তার। একবার ৪৫ মিনিটে তিনি সন্তান জন্ম দেন, সেটি ছিল সবচেয়ে কম সময়। তবে একবার ৩৬ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লেগেছিল।

সু বলছেন, ‘অনেক মানুষ আমাকে জিজ্ঞাসা করে, এটা খুব সহজ? আমি বলি, না।’

২০২০ সালের এপ্রিলে সর্বশেষ সন্তান হেইদির জন্ম দেন সু ও নোয়েল। তার আগ পর্যন্ত ২১ ছেলে-মেয়ের লালনপালনে তাদের খরচ হয়েছে ১০ লাখ পাউন্ড, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১২ কোটি টাকা।

নোয়েল বলেন, ‘আমি চেষ্টা করি, খরচ নিয়ে খুব একটা চিন্তা না করতে। এ ছাড়া আমার কী করার থাকতে পারে?’

পেশায় তিনি বেকারি ব্যবসায়ী। একটি পাই দোকান চালান নোয়েল। তার ভাষ্য, সন্তান লালনপালনে যে টাকা খরচ হয়েছে তা দিয়ে হয়তো একটি দামি পোর্শে গাড়ি কিনতে পারতেন তিনি।

অন্যদিকে মজা করে সু বলছেন, ‘আমরা হয়তো একটি বড় প্রাসাদে থাকতে পারতাম।’ তবে ১০ শয্যার বড় একটি ঘর নিয়েছেন এ দম্পতি, যেটি একসময় কেয়ার হোম ছিল।

১৩ বছর বয়সী জোসে তার সদ্য জন্ম নেয়া বোনকে দেখতে গিয়ে বলে, তার বাবা-মা হয়তো আর কোনো সন্তান নেবে না এমনটা আশা করে সে।

কৌতুক করে সে আরও বলে, ‘ঘরের জায়গা ছাড়িয়ে যাচ্ছি আমরা। এবার তার (সু) তো থামা উচিত, তাই না?’

নোয়েল বলেন, ‘ঘর ও খাবারের পেছনে মাসে ৩০ হাজার পাউন্ড খরচ হয়। এর জন্য আমাদের অনেক বেশি পাই বিক্রি করতে হয় দোকানে।’

এখন পর্যন্ত ১০ বছর বয়সের কম ৯জন সন্তান আছে র‌্যাডফোর্ড দম্পতির। ফলে ঘুমানোর জন্য তাদের বিছানায় নিতে রীতিমতো সংগ্রাম করতে হয় সুই-নোয়েলকে।

প্রথম ছেলে ক্রিস থেকে শুরু করে চার বছর বয়সী ফোয়েবের জন্মদিন পালনের জন্য এখন পর্যন্ত ৯০ হাজার পাউন্ড খরচ হয়েছে তাদের উপহারের পেছনে।

প্রতিদিন ১৬ বোতল দুধ, চারটি বড় পাউরুটি, ৮০টি দধি, তিনটি টুথপেস্ট এবং ২৮টি টয়লেট পেপার লাগে পরিবারটির।

সু বলছেন, ‘প্রায়ই দিন আমাকে চার থেকে পাঁচবার ধোয়াপালা করা লাগে, এটি শেষই হয় না।’

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/আয়েশা

Categories: অন্য দুনিয়া

Leave A Reply

Your email address will not be published.