শুক্রবার ৩ বৈশাখ, ১৪২৮ ১৬ এপ্রিল, ২০২১ শুক্রবার

প্রতিহিংসার আগুনে জ্বলছে বিএনপি: কাদের

অনলাইন ডেস্ক:বিএনপি রাষ্ট্রের অর্জন আর সক্ষমতা দেখতে পায় না মন্তব‌্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অর্জনে প্রতিহিংসার আগুনে জ্বলছে বিএনপি। 

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

সরকার দেশ ধ্বংস করে দিচ্ছে বলে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এতদিন সবকিছুতে না ছাড়া কিছুই দেখতে পেত না।  এখন সবকিছুতে দেখতে পায় ধ্বংস আর ধ্বংস।  সরকার নাকি গণতন্ত্র, অর্থনীতি ধ্বংস করে দিয়েছে, এমনকি দেশও ধ্বংস করে দিয়েছে।’

‘আমরা বলতে চাই, ধ্বংস নয় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলছে এক সৃষ্টিশীল বাংলাদেশ বিনির্মাণের মহাযজ্ঞ। চলছে সমৃদ্ধির সোপানে নতুন উচ্চতা নির্মাণের নিরলস প্রয়াস।  যাদের হাত ধরে এসেছে স্বাধীন বাংলাদেশ, তারা ধ্বংস নয়, এদেশকে গড়ে তোলার লক্ষ্যেই কাজ করছে অবিরাম।’

যারা স্বাধীন স্বদেশ চায়নি, এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা তারাই বাধা সৃষ্টি করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে তারাই এখন দেশের ধ্বংস চায়, দেশকে পিছিয়ে দিতে চায়।

দেশে কোনো স্বৈরতন্ত্র নেই, আছে গণতন্ত্র, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ আর বাক-স্বাধীনতো জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এজন‌্যই বিএনপি প্রতিনিয়ত সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারছে, পারছে অবিরাম বিষোদগার করতে।  গণতন্ত্র আছে বলেই সভা, সমাবেশ করতে পারছেন।

বিএনপি সরকারের শাসনামলে বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতনের স্মৃতি তুলে ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আপনারা যখন ক্ষমতায় ছিলেন, তখন আমরা আমাদের অফিসের সামনে একুশে ফেব্রুয়ারির আলোচনা সভা করতে পারিনি।  নেতাকর্মীদের নির্যাতন করা হয়েছিল।  রাজপথে আমরা দাঁড়াতে গেলে অত‌্যাচার করা হতো। আমাদের সিনিয়ল নেতাদের পর্যন্ত রাজপথে লাঠিপেটা করা হয়েছিল।  অন্তঃস্বত্ত্বা নারীকে পর্যন্ত তারা ছাড় দেয়নি।

‘দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই নিয়মিত নির্বাচন, উপ-নির্বাচন হছে।  বিএনপিও নিয়মিত অংশ নিচ্ছে, জয়লাভও করছে’, বলেন তিনি।

গণতন্ত্র একটি বিকাশমান প্রক্রিয়া এবং রাতারাতি প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পাবে না মন্তব‌্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এজন্য প্রয়োজন নিরবিচ্ছিন্ন পরিচর্যার। আর এই গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে বিএনপি কোনো দায়িত্বশীল ভূমিকা তো রাখেইনি বরং পদে পদে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিএনপি এবং তাদের মিত্রদের দেশের ধ্বংসাত্বক রাজনীতির ধারক-বাহক আখ‌্যা দিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিএনপি জনরায় পাবার আগেই ফল প্রত্যাখ্যান করেছে।  যা প্রকারান্তরে জনগণের রায়কেই অপমান করা।  তারা ষড়যন্ত্র আর মিথ‌্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে আর বলছে সবকিছু ধ্বংস হয়ে গেছে।  আসলে দেশের গণতন্ত্রের এগিয়ে যাওয়ার পথে বিএনপির নেতিবাচক ও অতি ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতি আসলে প্রধান অন্তরায়। 

করোনায় শেখ হাসিনার মানবিক নেতৃত্বের কারণে অর্থনীতি এবং জীবিকার সুরক্ষা রক্ষায় নজিরবিহীন পদক্ষেপ বিশ্বব‌্যাপী প্রশংসা পাওয়া বিএনপির কষ্টের কারণ  মন্তব‌্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আসলে তাদের সমস্যা মনস্তাত্ত্বিক। তারা সৃষ্টিতে নয়, ধ্বংসাত্মক প্রবণতায় ভুগছে। তাদের রাজনীতিতে সৃজনশীলতা নেই, আছে কর্মসূচির নামে জনগণের প্রাণ ও সম্পদ ধ্বংসের অপপ্রয়াস। তারা তীব্র মিথ‌্যাচার আর নেতিবাচকতার চক্রেই আবর্তিত হচ্ছে।

‘জনগণ এখন আর সমালোচনার কাসুন্দি ঘাঁটা পছন্দ করে না। জনগণ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চায়।  আত্মনির্ভরশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেতে চায়। এজন্য বিএনপির ধ্বংসাত্মক কর্মসূচি ও মিথ্যাচারে জনগণ সাড়া দেয় না।’

পরিবর্তিত বিশ্ব পরিস্থিতির কারণে রাজনীতিতে জনসম্পৃক্ত ইস্যু খুঁজে পাওয়ার ব্যর্থতা বিএনপি নেতৃত্বের অক্ষমতা ছাড়া আর কিছুই নয় বলেও মন্তব‌্য করে তিনি।

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/আয়েশা

Categories: রাজনীতি

Leave A Reply

Your email address will not be published.