মঙ্গলবার ১৭ ফাল্গুন, ১৪২৭ ২ মার্চ, ২০২১ মঙ্গলবার

একজোট হয়ে কাজ করবে গ্রামীণফোন ও নগদ

অনলাইন ডেস্ক:- মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নগদ। মোবাইল মানি ট্রান্সফারের জন্য সহজেই অ্যাকাউন্ট খুলতে গ্রামীণফোন টেলিকম অপারেটরের ৭.৮ কোটি গ্রাহককে সহজেই স্কোপ করে  দিতে  গ্রামীণফোনের সাথে এক জোট হয়েছে নগদ।

নগদ জানিয়েছে যে , গ্রামীণফোনের গ্রাহকরা অপারেটরকে জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, নাম, জন্ম তারিখ এবং বর্তমান ঠিকানা এই চার ধরণের তথ্য ভাগ করে নেওয়ার মাধ্যমে  নগদের এমএফএস অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন।

নগদ এবং গ্রামীণফোনের একটি ভার্চুয়াল ইভেন্টে পরিষেবাটি চালু হয়। সেখানে এমএফএস অপারেটর বলেছে যে এটি মোবাইল অপারেটরের সাথে ইতিমধ্যে নিবন্ধিত গ্রাহকদের তথ্য যাচাই করবে এবং তারপরে নির্বাচন কমিশনের ডাটাবেসের সাহায্যে এটি পরীক্ষা করবে।

নগদ তার গ্রাহক সংখ্যা দ্রুত বাড়ানোর জন্য এই পদক্ষেপটি খুবই কার্যকর। এমএফএস সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নগদে হাজার প্রতি ক্যাশ আউট চার্জ ৯.৯৯ ( নয় টাকা নিরানব্বই পয়সা)।  যা তার প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থাগুলির মধ্যে সর্বনিম্ন।

যেহেতু রবি এবং টেলিটকের গ্রাহকরা নগদের এই একই পরিষেবাটি গ্রহণ করতে সক্ষম হচ্ছেন, তাই দেশের ১৬.৮ কোটি মোবাইল ফোন গ্রাহকগণের মধ্যে ১২ কোটিরও বেশি গ্রাহক এখন সহজেই নগদে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে।

তবে তথ্য ভাগ করে নেওয়ার বিষয়ে উদ্বিগ্ন কিছু গ্রাহক। কিছু গ্রাহকরা তাদের সংবেদনশীল তথ্য কীভাবে ব্যবহার হবে তা নিয়ে সংশয় রয়েছেন এবং কেউ কেউ আবার এই পদক্ষেপের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

ডাক বিভাগের ডিজিটাল আর্থিক পরিষেবা বাহিনী নগদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মিশুক বলেছেন, “অপারেটরদের পরিচয় সম্পর্কিত তথ্য ভাগ করে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ টেলিযোগযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এর অনুমতি রয়েছে। *১৬৭# ডায়াল করে গ্রাহক নগদকে তথ্য অধিগত করার অনুমতি দেবে।”

তিনি আরো বলেন , “এর অর্থ হল পুরো প্রক্রিয়াটি আইনতভাবে করা হয়েছে এবং গ্রাহকের তথ্য পুরোপুরি নাগাদের ডাটাবেসে সুরক্ষিত রয়েছে।” তিনি বলেন, “নাগাদ এনআইডি ডাটাবেস থেকে অন্যান্য তথ্যও যাচাই করে এবং পুরো প্রক্রিয়াটি মাত্র দশ সেকেন্ডের মধ্যে শেষ করবে।”

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার নগদ এবং গ্রামীণফোনকে এমন একটি পরিষেবা চালু করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন। যা ডিজিটাল পরিষেবা অ্যাক্সেসকে আরও সহজ করে তোলে।

মোস্তফা জব্বার বলেন, “এই উদ্ভাবনের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ কোনওরকম বাধার মুখোমুখি হবে না। এই উদ্যোগ দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।”

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান বলেছেন, প্রযুক্তির সুবিধা আনতে এবং ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তিকে বাংলাদেশের মানুষের জন্য  সম্ভব করতে নগদকে অবশ্যই একসাথে কাজ করতে হবে।

নগদ বাংলাদেশ পোস্ট অফিস এবং থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিসের একটি যৌথ উদ্যোগ। ডাক বিভাগের ৫১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে এতে। ডাক বিভাগের  ডিজিটাল লেনদেনই হল নগদ।

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/রূপা

Categories: অর্থনীতি

Leave A Reply

Your email address will not be published.