মঙ্গলবার ২৯ কার্তিক, ১৪২৫ ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ মঙ্গলবার

বাংলার বধূ হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন শ্রীদেবী

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: দক্ষিণ ভারতের তামিল ও তেলুগু সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীদেবী হিন্দি ছবির জগতে পা রাখা মাত্র সারা ভারতের হৃদয় জয় করে নিয়েছিলেন, তা সে সুপারহিট দক্ষিণী ছবির হিন্দি রিমেক হোক বা মৌলিক হিন্দি ছবি৷ একটা সময় ছিল, যখন শ্রীদেবীকে ভেবেই ছবির চিত্রনাট্য লেখা হতো৷ নায়িকা-কেন্দ্রীক হতো সেসব ছবি, যা পুরুষশাসিত ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতে একটা অভিনব ঘটনা৷ সে অর্থে শ্রীদেবীই হয়ে উঠতে পেরেছিলেন ভারতীয় সিনেমার প্রথম মহিলা সুপারস্টার৷


এর পাশাপাশি কলকাতা, তথা পশ্চিমবঙ্গের বাংলাভাষী মানুষদের মনে শ্রীদেবীর জন্যে আলাদা একটু জায়গা তৈরি হয়েছিল, বাড়তি একটু খাতির৷ কারণ হিন্দি ছবির বাঙালি সুপারস্টার মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে শ্রীদেবীর গোপন প্রেম৷ যে প্রেম গোপন হয়েও গোপন থাকেনি৷ আসমুদ্রহিমাচল ভারত জানত শ্যামলাবরণ বাঙালিবাবুতে মন মজেছে সেই সময়ের সুন্দরীশ্রেষ্ঠা শ্রীদেবীর৷ প্রবীণ চলচ্চিত্র সাংবাদিক চণ্ডী মুখোপাধ্যায় যে কারণে শ্রীদেবীর মৃত্যুসংবাদ পাওয়ার পরই ফেসবুক পোস্টে লিখলেন, শ্রীদেবীর সঙ্গে তাঁর আলাপ মিঠুনের মাধ্যমে৷ শ্রীদেবী তখন বাংলার বধূ হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন৷


কিন্তু মিঠুন ছিলেন বিবাহিত৷ তাঁর স্ত্রী যোগিতা বালিও একজন অভিনেত্রী এবং যথেষ্ট বিখ্যাত৷ তাঁদের দু’জনের একটি ছেলেও আছে৷ মিঠুন সেই বৈবাহিক এবং সাংসারিক দায়-দায়িত্ব ছাড়তে চাননি৷ আবার তিনি শ্রীদেবীকেও রাখতে চেয়েছিলেন জীবনে৷ কিন্তু রাজি হননি রক্ষণশীল দক্ষিণ ভারতীয় আবহে বড় হয়ে ওঠা শ্রীদেবী৷ তিনি মিঠুনকে সময় বেঁধে দিয়েছিলেন৷ স্ত্রী-পুত্রকে ছেড়ে আসার জন্য৷ মিঠুন পারেননি৷ কোথাও একটা মধ্যবিত্ত বাঙালির সংস্কার কাজ করেছিল সম্ভবত৷ কিন্তু মিঠুন এবং শ্রীদেবী, দু’‌জনের মধ্যেই অসম্পূর্ণ সম্পর্কের দুঃখবোধটা ছিল৷ যে কথা এদিন ফেসবুকে খোলাখুলি জানিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ, সাংবাদিক এবং একসময় মিঠুন চক্রবর্তীর বাণিজ্যিক সহযোগী কুনাল ঘোষ৷

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: বিনোদন

Leave A Reply

Your email address will not be published.