রবিবার ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ১৮ নভেম্বর, ২০১৮ রবিবার

আমার চেয়ে বড় চান্দাবাজ তো নাই:সেলিম ওসমান

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ এ কে এম সেলিম ওসমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, আমি তো নারায়ণগঞ্জের সবচেয়ে বড় চান্দাবাজ। আমার চেয়ে বড় চান্দাবাজ তো নাই। সমালোচনা হয়, আমি কতো টাকা দেই আমার ছেলে-মেয়েদেরকে। আমি তো টাকা সব বিদেশে পাঠাইয়া দেই, বিদেশ থেকে কিচ্ছু আনি না। আরে এটা তো একজন সংসদ সদস্যকে হিসেব দিতেই হবে। আসেন না, একটু জিজ্ঞেস করেন না, আমি কতো পাঠাই আর কতো টাকা আনি। আমার ব্যাংকে যান, আমার রেমিটেন্স কতো দেখেন। আপনি তো একজন জনপ্রতিনিধি। খোঁচায়েন না, খোঁচা দিলে এমন খোঁচা দেওয়া হবে তাহলে কিন্তু স্বস্তিতে থাকতে পারবেন না। খোঁচাখুঁচি বন্ধ করেন। জনগনের সেবা করতে আসছি, এক টেবিলে বসেন, আলোচনা করেন। যখন ডাকবেন তখনি আসবো।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে পুলিশ লাইনসে জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হকের কাছে ৬টি পিকআপ ভ্যান হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এসব বলেন।

সেলিম বলেন, আমাদের ফেস করেন। আমাদের মরনের ভয় নাই। আমরা শান্তিপূর্নভাবে হকার সমস্যা সমাধান করবো। হকার সমস্যা সমাধান করতে গিয়ে জনগনের অসুবিধা হবে, এরকম কাজ আমরা করবো না। প্রথমে যারা নারায়ণগঞ্জের মানুষ তাদেরকে আগে সুযোগ দেবো। যেকোন কাজ করতে হলে একটু ধীরে ধীরে যেতে হবে। জোড়া দেয়ার কাজটা করতে হবে। ভেঙে দেয়ার কাজটা সহজ, জোড়া দেওয়ার কাজটা একটু কঠিন।
সংসদ সদস্য আরো বলেন, কোন অসভ্য, কোন লুটেরা, কোন ছিনতাইকারী, কোন বালু ভরাটকারী, বালু কাটাওয়ালা, জমি দখলদার সেলিম ওসমানের নেতাকর্মী নয়। যদি সেলিম ওসমানের নেতাকর্মী এই ধরনের লোক হতো, তাহলে সেলিম ওসমান একটার পর একটা স্কুল বানাতে পারতো না। আমার গ্রামের স্কুলের কাজ শেষ হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ কলেজে আপনারা দেখেছেন। আমি তিনটা দোষ নিয়ে চলি। আমি কান কথা শুনি না, চোখে পর্দা নাই, আমার জিহ্বা ব্লেডের মতো ধার। এই তিনটা রোগ আমার থাকবেই। আমি কারো কাছে মাথা নত করব না, হাত পাতবো না।

তিনি পুলিশ বাহিনীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনাদের উপর দেশের শান্তি নির্ভর করে। আপনারা একেকজন একেক জায়গায় কাজ করেন। খেয়াল রাখবেন, কেউ যেন আপনাদের সামনে সালাম দিয়ে পেছনে গালি না দেয়।
পিক আপ ভ্যান প্রদান অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিকেএমইএ এর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি মঞ্জুরুল হক, পরিচালক আবু আহম্মদ সিদ্দিক, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, সহ সভাপতি মোর্শেদ সারোয়ার সোহেল, বিকেএমইএ প্রথম সহ সভাপতি মনসুর আহম্মেদ, দ্বিতীয় সহ সভাপতি ফজলে এহসান শামীম, সহ সভাপতি (অর্থ) হুমায়ন কবির খান শিল্পী, পরিচালক জিএম ফারুক সহ অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

বিষেরবাঁশী.কম/ সংবাদদাতা/ হীরা

Categories: Uncategorized

Leave A Reply

Your email address will not be published.