সোমবার ৫ ভাদ্র, ১৪২৫ ২০ আগস্ট, ২০১৮ সোমবার

পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পে খরচ ও সময় বাড়ছে

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: কুড়িল-বালু নদ ১০০ ফুট চওড়া খাল খনন ও ৩০০ ফুট রোডসহ পুরো পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের বাস্তবায়নে খরচ ও সময় কিছুটা বাড়বে বলে জানিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইফতেখার আনিস। রোববার পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ১৪নং সেক্টরের আর্মি ক্যাম্পে কুড়িল পূর্বাচল লিংক রোডের উভয় পার্শে (কুড়িল হতে বালু নদ পর্যন্ত) ১০০ ফুট চওড়া খাল খনন ও উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

প্রকল্পের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে তিনি বলেন, সার্ভিস রোডের বর্তমান অবস্থানের কারণে আগের তুলনায় বেশি মানুষ সুবিধা ভোগ করবে। এ ছাড়া ৩০০ ফুট রোডের উত্তর-দক্ষিণে রাজউকের ড্যাপের তিনটি প্রস্তাবিত রাস্তা আছে। ভূমি অধিগ্রহণের মাধ্যমে এই রাস্তা তিনটির বাস্তবায়নের কাজও এ প্রকল্পের আওতায় আনা হচ্ছে। এর জন্য আরডিপিপি করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, পাশাপাশি নিকটেই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের একটি প্রজেক্ট রয়েছে। সবগুলো প্রজেক্ট বাস্তবায়িত হলে এ অঞ্চলে কোনো যানজট সৃষ্টি হবে না। রাজউকের ড্যাপের তিনটি প্রস্তাবিত রাস্তা বাস্তবায়নসহ পুরো প্রকল্পের খরচ ও সময় কিছুটা বাড়বে। ‘কুড়িল-পূর্বাচল লিংক রোডের উভয় পাশে ১০০ ফুট চওড়া খাল খনন ও উন্নয়ন’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে রাজউকের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহমান বলেন, ‘খাল প্রজেক্টের ফলে ড্যাপের প্রস্তাবিত রাস্তা বাস্তবায়ন সম্ভব হচ্ছে। এটি আমাদের একটি প্লাস পয়েন্ট। ড্যাপের রাস্তা বাস্তবায়িত হলে বিপুল জনগোষ্ঠী সুযোগ-সুবিধা পাবে।’

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শরীফ রায়হান কবীর বলেন, খাল খনন প্রকল্পের জন্য ভূমি অধিগ্রহণে ১২০০টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৫৫০টি পরিবারের ক্ষতিপূরণ বাবদ ১৮৫০ কোটি টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। ৬০০টি পরিবারের জমি নিয়ে মামলা আছে বিধায় ক্ষতিপূরণ পরিশোধ করা যায়নি এবং বাকি ৫০টি পরিবার এখনো ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করেনি।

সংবাদ সম্মেলনে ডিজি, ২৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড, বুয়েটের পরামর্শক দলের প্রধান অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন, রাজউকের প্রকল্প পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম, সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকল্প পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল নিজাম উদ্দীন আহমদ, পিএসসি, রাজউকের সদস্য (উন্নয়ন) মেজর ইঞ্জিনিয়ার সামসুদ্দিন আহমদ চৌধুরীসহ রাজউক ও সেনাবাহিনীর অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলন শেষে খাল খননের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত মস্তুল এলাকার একটি মসজিদের নতুন করে নির্মাণের কাজ মাটি কেটে উদ্বোধন করেন রাজউকের চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: অর্থনীতি

Leave A Reply

Your email address will not be published.