রবিবার ৬ ফাল্গুন, ১৪২৪ ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ রবিবার

ভুয়া পর্নো ভিডিওর শিকার হচ্ছে অভিনেত্রীরা

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: অতিসম্প্রতি অনেকে লক্ষ্য করেছেন বিখ্যাত কিছু অভিনেত্রীর পর্নো ভিডিও বের হয়েছে। যা দেখে ভক্তরা হতবাক হয়ে বলছেন- ‘প্রিয় অভিনেত্রীটি এমনটি করতে পারলো?’ আসলে ভিডিওগুলো রিয়েল না। এগুলো এক ধরণের ভুয়া পর্নো ভিডিও। বিশেষ ধরণের এডিটিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে এই ভিডিওগুলো তৈরি করা হচ্ছে।

হলিউডের অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, এমা ওয়াটসন, নাটালি পোর্টম্যান কিংবা কেট উইন্সলেট থেকে শুরু করে অধিকাংশ সেলিব্রেটিরা এই ভুয়া পর্নো ভিডিওর শিকার হয়েছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও দেখা গেছে এধরণের ভুয়া ভিডিওতে। এমনকি ট্রাম্পের মেয়ে ইভানকা ট্রাম্প, সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা, প্রিন্স উইলিয়ামের স্ত্রী কেট মিডলটনকে নিয়েও বানানো হয়েছে এই ভুয়া পর্নো ভিডিও।

এই ধরণের ভিডিওকে বলা হচ্ছে ‘ডিপ ফেক’। এতে একজনের মুখ আরেকজনের ঘাড়ে বসিয়ে তৈরি করা হচ্ছে পর্নো ভিডিও। এবং তা পরে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। এগুলোর অবস্থা এমন হয়েছে যে- জিফিক্যাট নামের একটি ইমেজ হোস্টিং সাইট এসব ভিডিও মুছে দেয়ার কাজ করছে। সানফ্রানসিসকো ভিত্তিক এই প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে তারা এরকম অনেক ‘আপত্তিকর’ ভিডিও ইন্টারনেট থেকে মুছে দিয়েছে।

এ ধরণের ভিডিও তৈরিকৃত ‘ফেকএ্যাপ’ নামে একটি সফটওয়্যারের ডিজাইনার বলেছেন, তার তৈরি করা সফটওয়্যারটি একমাসেরও কম সময় আগে অনলাইনে ছাড়া হয়েছে। এবং এই সময়ের মধ্যে এটি ১ লক্ষেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে।

এই ভুয়া ভিডিও তৈরি করতে দরকার হবে একজনের কয়েকশ’ ছবি, আর একটি পর্নোগ্রাফিক ভিডিও। যার বাকি কাজ নিজের কম্পিউটারটি করে দেবে। একটি ছোট ভিডিও ক্লিপ বানাতে সময় লাগে ৪০ ঘণ্টার মতো। এরকম ছবি বা ভিডিও আগেও বানানো যেতো, কিন্তু তা করতে হলে দরকার হতো একজন দক্ষ সিনেমা সম্পাদকের এবং এটি করতে খরচ হতো অনেক। কিন্তু এখন এই প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে অনেক সহজ হয়ে গেছে।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: বিনোদন

Leave A Reply

Your email address will not be published.