মঙ্গলবার ৯ মাঘ, ১৪২৫ ২২ জানুয়ারি, ২০১৯ মঙ্গলবার

নিরাপত্তাহীনতায় অসহায় দেলোয়ারের পরিবার

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: মানুষ চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার প্রতিবাদ করায় বরিশাইল্যা টিপু বাহীনির হামলায় প্রতিবাদকরী যুবক দেলোয়ার করুন অবস্থায় হাসপাতালের বেডে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। কুপিয়ে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় অবেশেষে মামলা হলেও এখনো কোন আসামী ধরতে পারেনি ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশ। নানা নাটকিয়তায় ঘটনার ৭২ ঘন্টার পরে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ অভিযোগটি নথিভুক্ত করতে বাধ্য হয়। আহত দেলোয়ারের স্ত্রী আমেনা খাতুন বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। অদৃশ্য কারনে বারবার মামলা অন্তভুক্ত না করে উল্টো বাদীকে নানা ভয় ভীতি দেখায় বলে অভিযোগ রয়েছে।

সিনেমা হলের টিকেট চেকার থেকে কোটিপতি বনে যাওয়া চিহ্নিত ভূমিদস্য নব্য গডফাদার রফিকুল ইসলাম টিপু ওরফে বরিশাইল্যা টিপুসহ আরো ৪ জনের নাম উল্লেখ্য করে এ মামলাটি দায়ের হয়। ১০ জানুয়ারী গভীর রাতে রুজু হওয়া মামলাটির নং ৪৭।
মামলার বিবরনীতে প্রকাশ, গত ৮ জানুয়ারী বিকেলে জয়নগর ও দিপ্তি ডাইংয়ের মধ্যে অবস্থিত সরকারী রাস্তাটি দীর্ঘ ২ বছর ধরে বন্ধ করে দিয়ে মানুষ চলাচলে প্রতিবন্ধকতা করেন দিপ্তি ডাইংয়ের মালিক রফিকুল ইসলাম টিপু। এ নিয়ে এলাকাবাসী একাধিক বার প্রতিবাদ জানালেও টিপু প্রতিবাদকারীদের নানা ভাবে ভয়ভিতি দেখিয়ে আসছিলো। গত ৮ জানুয়ারী এলাকারা দেলোয়ার হোসেন রাস্তা বন্ধ রাখার প্রতিবাদ জানালে নব্য গডফাদার টিপু তার ভাই সাপ্পু, ভাগ্নে রায়হান,রাজিবসহ বেশ কিছু ভাড়াটে সন্ত্রাসী দেলোয়ারের উপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। দেলোয়ারের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এসময় স্থানীয়রা দেলোয়ার গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করে পরে অবস্থার অবনতি ঘটলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে হস্তান্তর করে দ্বায়ীত্বরত চিকিৎসকরা। ইতিপূর্বে টিপুর বিরুদ্ধে ভূমিদস্যুতা, চেকজালিয়াতি, সন্ত্রাসী লালনসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদে এলাকাবাসী ঝাড়ু– মিছিলও করেছিলো। উল্লেখ্য, বরিশাইল্যা টিপু সাবেক এমপি কবরীর সময়ে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানের ফ্যাক্টরীতে হামলা চালিয়েছিলো ।

এদিকে শনিবার বিকালে বরিশ্যইল্যা টিপুকে গ্রেফতারের দাবিতে পোষ্ট অফিস রোড থেকে একটি মিছিল বের হয়ে ফতুল্লার মডেল থানার সামনে অবস্থান নিয়ে পরে ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের সামনে এসে এক প্রতিবাদ সভার মাধ্যমে বিক্ষোভ জানান এলাকাবাসী।এ সময় বক্তারা নব্য গফফাদার টিপু ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবি জানান।
এলাকাবাসী জানান, বরিশ্যইল্যা টিপু অনেকদিন যাবৎ দিপ্তি ডাইংয়ের অন্তরালে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও এলাকাবাসীদের স্বার্থ রক্ষা না করে তিনি নানা ভাবে জোর বল প্রয়োগের মাধ্যমে এলাকার মানুষের দূর্ভোগ সৃষ্টি করছে। প্রশাসনকে মোটা অংকের টাকা মাসোহারা দেওয়ায় ফতুল্লা থানা পুলিশ তার পক্ষে কাজ করে।
আহত দেলোয়ারের স্ত্রী আমেনা খাতুন জানান, পুলিশ এখনো কোন আসামী গ্রেফতার না করে বরং কৌশলে মামালা তুলে নিতে ভয়ভৃতী দেখাচ্ছে। এমনিতেই মামলা নেওয়ায় নানা গড়িমসি করছে পুলিশ ।স্থানীয় এলাকাবাসী ও সাংবাদিক ভাইদের অনুরোধে বাধ্য হয়ে মামলা নিলেও মামলার কোন অগ্রগতী নেই। আমি আমার পরিবারপরিজন নিয়ে ভয়ে দিন কাটাচ্ছি। অভিযুক্ত আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং উল্টো আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। আমি আইনের কর্তাব্যাক্তিদের কাছে বিচার চাই এবং আমার পরিবারের নিরাপত্তা চাই।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হীরা

Categories: অপরাধ ও দুর্নীতি,নারায়ণগঞ্জের খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.