শনিবার ৭ আশ্বিন, ১৪২৫ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ শনিবার

যাত্রা শুরু ৪ দিনের টেস্টের

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: টেস্ট ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করে তোলার নিরন্তর চেষ্টা চলছে ক্রিকেট অঙ্গনে। গোলাপি বলে দিবারাত্রির টেস্ট খেলা শুরু হয়েছে ২০১৫ সালের শেষ দিকে। এবার আরেকটি ফরম্যাট-চারদিনের টেস্ট। প্রথমবারের মতো আজ পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জ পার্কে শুরু হবে ঐতিহাসিক এই টেস্ট দ্বৈরথ। তারও আবার বক্সিং ডে’তে।

স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টা থেকে (বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায়) ৬ ঘণ্টার বদলে প্রতিদিন সাড়ে ৬ ঘণ্টা করে খেলা হবে। পাঁচদিনের টেস্টে প্রতিদিন ৯০ ওভার করে খেলা হলেও, চারদিনের টেস্টে রোজ ৯৮ ওভার করে খেলা হবে।

প্রথম দুই সেশনে ২ ঘণ্টা ১৫ মিনিট করে খেলা হবে। প্রথম সেশনের পর লাঞ্চের বিরতির বদলে ২০ মিনিটের চা-পানের বিরতি হবে। দ্বিতীয় সেশনের পর ৪০ মিনিটের নৈশভোজের বিরতি হবে। কোনো কারণে খেলার সময় নষ্ট হলে পরের দিন বাড়তি সময় খেলা হবে না। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করা দল ১৫০ রানে এগিয়ে থাকলেই ফলো-অন করাতে পারবে।

১৯৭২-৭৩ মৌসুম পর্যন্ত টেস্ট ম্যাচের নির্দিষ্ট কোনও দিন ছিল না। ৬ থেকে শুরু করে ৩ পর্যন্ত যে কোনও দিনের ম্যাচ হত। টাইমলেস টেস্ট ম্যাচও হয়েছে। ১৯৩৮-৩৯ মৌসুমে ডারবানে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ডের মধ্যে শেষ টাইমলেস টেস্ট ম্যাচ হয়েছিল। ১০ দিন ধরে খেলা হয়েছিল। তার মধ্যে বৃষ্টির জন্য একদিনের খেলা ভেস্তে গিয়েছিল।

ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের দেশে ফেরার জাহাজ ধরার ছিল বলে ১০ দিনের পর ম্যাচ ড্র বলে ঘোষণা করা হয়। ১৯৭২-৭৩ মৌসুম থেকে পাঁচদিনের টেস্ট ম্যাচই হচ্ছে। শুধু ২০০৫-০৬ মরসুমে অস্ট্রেলিয়া ও বিশ্ব একাদশ ৬ দিনের একটি টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল। এখনও পর্যন্ত সাতটি দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচ। প্রথম ম্যাচটি হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাতেই।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: খেলাধূলা

Leave A Reply

Your email address will not be published.