বৃহস্পতিবার ১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ বৃহস্পতিবার

‘জঙ্গলের মধ্যে টিন-শেড ঘরে আমাকে আটকে রাখে’

    অনলাইন ডেস্ক: দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে নিখোঁজ থাকা সাংবাদিক উৎপল দাস জানিয়েছেন, তাকে চোখ বেঁধে কোন জঙ্গলের নিয়ে যাওয়া হয়েছি। সেখানে একটি টিন-শেড ঘরে তাকে আটকে রাখা হয়।
পূর্বপশ্চিমবিডি ডট নিউজ নামের একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমের এই জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদককে নিখোঁজ হওয়ার দুইমাস পর গত মঙ্গলবার রাতে নারায়ণগঞ্জের ভুলতা এলাকায় ফেলে রেখে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে স্থানীয় ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।

পরে নরসিংদী থেকে তার পরিবারের সদস্যরা সেখানে পৌঁছালে উৎপল দাসকে তাদের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।
এই দুমাসের বেশি সময় তিনি কোথায় ছিলেন এমন প্রশ্নের জবাবে উৎপল দাস বলেন, আসলে কোথায় ছিলাম সেটা নিজেও জানিনা। আমাকে চোখ বেধে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।
উৎপল জানান, ধানমন্ডিতে একটি রেস্তোরায় খাওয়া-দাওয়ার পর সেখান থেকে বের হলে একটি গাড়িতে করে তাকে তুলে নিয়ে যায় একদল লোক।
কোথায় রাখা হয়েছিল কিছু ধারণা করতে পারেন কি-না জানতে চাইলে উৎপল দাস বলেন, আমাকে নেওয়া হয়েছিল ধানমন্ডি থেকে। কিন্তু কোথায় নেওয়া হয়েছিল কিভাবে নেওয়া হয়েছিল এর বাইরে আমি কিছু জানিনা। আমাকে চোখে বেধে গাড়ি করে নিয়ে যাওয়া হয়।
রাতে পুলিশ ফাঁড়িতে অবস্থানের সময় বিবিসিকে তিনি আরও বলেন, একটা জঙ্গলের মধ্যে একটা টিন-শেড ঘরের মধ্যে আমাকে আটকে রাখে। প্রথমদিকে মাঝে মাঝে বলে এত টাকা আছে তুই টাকা দে। টাকা দিলে তোকে ছেড়ে দেব। তারপর যেহেতু আমি টাকা দিতে পারিনাই শেষ দিকে তারা এসে আমাকে বলেছে তুই যেহেতু টাকা দিতে পারিসনাই মেরে ফেলবো।
এরপর গতকাল মঙ্গলবার তাকে নারায়ণগঞ্জের ভুলতায় নামিয়ে দেওয়া হয়। সেসময় তাকে কি বলা হয়েছিল জানতে চাইলে উৎপল বলেন, আমাকে তারা বলে, তোর ফোনে চার্জ আছে তুই বাড়ি চলে যা। আর আমাকে বললো পিছনে ফিরে তাকাবি না। আমি আর পেছনে ফিরে তাকাইনি। আর বললো ৫০ গজ পেছনে একটা পেট্রোল পাম্প আছে সেখানে যেতে। তখন আমি সেই পেট্রোল পাম্পে চলে যাই এবং গিয়ে বাড়িতে ফোন করি।

বি্ষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/নিঃতঃ

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.