সোমবার ৪ পৌষ, ১৪২৪ ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ সোমবার

নারায়ণগঞ্জে প্রকাশ্যে নানা কৌশলে বাড়ছে ছিনতাই

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জে দিনের বেলায় প্রকাশ্যে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। তবে জনসম্মুখে প্রকাশ্যে এসব ছিনতাইয়ের জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে থাকে অপরাধীরা। এসব ছিনতাইয়ের ঘটনায় ভুক্তভোগীকে অনেকটা বোকা বানিয়ে এ অপকর্ম করা হয়ে থাকে।সম্প্রতি শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে ছিনতাইয়ের এ ঘটনা অহরহ ঘটছে বলে নানা তথ্য পাওয়া গেছে।

কেস স্টাডি-১: কিছুদিন পূর্বে শহরের গলাচিপা এলাকা সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু সড়কে রিকশা দিয়ে যাওয়া এক যাত্রীর রিকশা চালককে ইশারা করে কিছু একটা বোঝাতে চেয়েছিল। আর সেই ইশারা দেখে আশেপাশের লোকজন ভাববে এই ছিনতাইকারী যাত্রীটির পরিচিত ব্যক্তি। এদিকে যাত্রী অনেকটা হতভম্ব হয়ে পড়ে। ততক্ষণে এই সুযোগে ছিনতাইকারী যাত্রীর রিকশায় চড়ে বসে। এর পরই সেই পরিচিত ভাব নেয়া ব্যক্তিটির আসল চেহারা বেরিয়ে আসে। সেই ব্যক্তিটি আড়াল করে ছুরি কিংবা অস্ত্র ঠেকিয়ে যাত্রীর সঙ্গে থাকা সব কিছু হাতিয়ে নেয়। এভাবেই দিনে দুপুরে শহরের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাইকারীরা নানা কৌশলে ছিনতাই করে যাচ্ছে।
কেস স্টাডি-২: নারায়ণগঞ্জ শহরের উকিলপাড়া এলাকা সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় গতিরোধ করে তার কাছে এক ব্যক্তি কিছু লেখার জন্য একটি কলম চায়। এতে সেই ব্যক্তিটি সরল বিশ্বাসে কলম বের করতে গেলে ওই ছিনতাইকারী কাপড়ে মোড়ানো একটি ছুরি দেখিয়ে তাকে ভয় দেখায়। আর ছুরিটি এমনভাবে কাপড়ে মোড়ানো ছিল যে আশেপাশের লোকজন দেখলে কেউ বুঝতে পাড়বে না। এই সুযোগে ওই ছিনতাইকারী ওই পথিকের কাছ থেকে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা, মোবাইল ফোন, সোনার চেইন ও নগদ টাকা হাতিয় নেয়।

কেস স্টাডি-৩ : নারায়ণগঞ্জের প্রাণ কেন্দ্র চাষাঢ়ার খাজা মার্কেটের কোনে সোনালী ব্যাংকের কাছে একজন ব্যক্তি রিকশা থেকে নামার পর একজন অপরিচিত ব্যক্তি হুট করে তার সামনে এসে হাজির হয়। ব্যস্ত শহরের লোকজন সবাই যার যার কাজ নিয়ে তখন খুবই ব্যস্ত তাই আশেপাশে অযথা তাকানোর জো ছিল না। এই সুযোগে ওই অপরিচিত ব্যক্তিটি অর্থাৎ ছিনতাইকারী প্রথমে ওই ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করে কোথায় বাড়ি? সে উত্তরে বলে আমার বাড়ি নরসিংদী থেকে এসেছি। একথা বলতেই সেই ছিনতাইকারী বলে নারায়ণগঞ্জ আসলে টাকা দিতে হয় সেটা কি জাননা। একথা বলে নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে তার কাছ থেকে টাকা সহ মোবইল ফোন হাতিয়ে নেয়।

জানা গেছে, ছিনতাইকারীরা এমন ব্যক্তিতে টার্গেট করে যে দেখতে অনেকটা বোকা প্রকৃতির হয়ে থাকে। এছাড়া ওই ব্যক্তির পরিচিতি কিনা সেটা বিষয়টা সবার আগে ছিনতাইকারীরা বিবেচনা করে। এছাড়া তারা টর্গেটকৃত ব্যক্তিটিকে খুব দ্রুত পর্যবেক্ষণ করে। আর এই পর্যবেক্ষনই পরেই তারা শিকার হিসেবে কোন ব্যক্তিতে টার্গেট করে থাকে।
আর এভাবেই দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে ছিনতাইয়ের ঘটনা বেড়ে চলেছে। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারীর অভাবে প্রকাশ্যে ছিনতাইয়ের ঘটনা বেড়ে চলেছে বলে দায়ী করেছেন ভুক্তভোগী ব্যক্তিরা। এছাড়া শহরের অগনিত সিসি ক্যামেরা থাকা সত্ত্বেও ছিনতাইকারীরা অপরাধ করে যাচ্ছে। আর সাধারণ মানুষ ছিনাইয়ের শিকার হচ্ছে।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: নারায়ণগঞ্জের খবর,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.