শুক্রবার ২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ শুক্রবার

যুুক্তরাজ্যে স্কুল শিক্ষার্থীদের আতঙ্কের নাম কম্পিউটার সায়েন্স

  • অনলাইন ডেস্ক

যুুক্তরাজ্যে স্কুল পর্যায়ে কম্পিউটার শিক্ষায় রাতারাতি বিপ্লব আনতে গিয়ে দেখা দিয়েছে নতুন সমস্যা। প্রচলিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) শিক্ষা বাদ দিয়ে সেই জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে কম্পিউটার সায়েন্সের মতো বিষয় জিসিএসই-কে । কিন্তু আইসিটির জায়গায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা জিসিএসই বিপ্লবে এখনো ইতিবাচক সাড়া দিচ্ছে না। বিশেষ করে ছাত্রীরা। কারণ তাদের অধিকাংশের মতে কম্পিউটার সায়েন্স কিংবা কোডিং এসবই ছেলেদের জন্য। এসব শিখে পেশাগতভাবে কাজে লাগানো যাবে কিনা এই নিয়েও সন্দেহে আছে ব্রিটিশ কিশোরীরা।

জিসিএসই নতুন যুগের জন্য ব্যবসামুখী জনশক্তি তৈরি করবে। তবে বাস্তবতা হচ্ছে এই বিষয়ে সাধারণ স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে ততোটা আগ্রহ নেই। এখনো বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই পুরানো আইসিটি শিক্ষাতেই আগ্রহী। এমন দ্বিধা চলতে থাকলে ২০২০ সাল নাগাদ যুক্তরাজ্যে কম্পিউটার শিক্ষার্থীর সংখ্যা অর্ধেকে নেমে আসতে পারে বলে আশঙ্কা করছে ব্রিটিশ কম্পিউটিং সোসাইটি (বিসিএস)।

এই কয়েকদিন আগেও যুক্তরাজ্যের স্কুল পর্যায়ে কম্পিউটার শিক্ষা মানেই ছিলো আইসিটি। এখন সেই বিষয়কে হটিয়ে ইন্টারনেট ব্যবসাবান্ধব জিসিএসই প্রবর্তিত হচ্ছে। কারণ আইসিটির সমালোচকরা মনে করেন এই বিষয়টি কেবল শিক্ষার্থীদের মাইক্রোসফট অফিস ছাড়া চালাতে শেখানো ছাড়া আর তেমন কিছুই করার মতো নয়। এজন্যই আধুনিক প্রযুক্তি দুনিয়ার জনশক্তি গড়তে জিসিএসই প্রবর্তন করা।
কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বুঝলেও যাদের জন্য এই নতুন বিষয়ের অন্তর্ভুক্তি তাদের মধ্যেই দেখা যাচ্ছে অনাগ্রহ।

বিসিএস এর দেয়া তথ্যমতে, পুরানো আইসিটি বিষয়ে ৪০শতাংশ নারী শিক্ষার্থীর আগ্রহ থাকলেও নতুন জিসিএসই পড়তে চায় মাত্র ২০শতাংশ।

এরকম চলতে থাকলে আইসিটি বাতিল হওয়ার পর জিসিএসই পরীক্ষা প্রয়োজনীয় শূন্যস্থান পূরণ করাটা বেশ কঠিন হবে বলে আশঙ্কা করছে বিসিএস।

তাই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বিসিএস এর বিশেষজ্ঞ বিল মিশেল বলেন,‘এখনই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিলে ২০২০ সালে কম্পিউটারে দক্ষ জনবল বৃদ্ধির বদলে অর্ধেকে নেমে আসবে। এটা আমাদের শিশুদের জন্য ,সুন্দর ভবিষ্যতের জন্যও হতাশার।’
শিক্ষার্থীদের মধ্যে জিসিএসই নিয়ে এই অনাগ্রহের কারণ খুঁজে বের করেছেন লন্ডন ইউনিভার্সিটি কলেজের নলেজ ল্যাবের অধ্যাপক রোজ লুকিন। তার মতে, জিসিএসই আগ্রহ উদ্দীপক কোনো বিষয় হিসেবে উপস্থাপিত হয়নি। উল্টো এই বিষয়কে বেশ একটা প্রযুক্তি নির্ভর অতি জটিল বিষয় হিসেবে তুলে ধরা হয়।’

এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে কম্পিউটার শিক্ষাকে আরও সহজ করতে প্রথমে শিক্ষকদের এই বিষয়ে সঠিক প্রশিক্ষণ এবং পরে সহজ ভাবে শিক্ষার্থীদের কাছে উপস্থাপনের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

বি.বা/ডেস্ক/ক্যানি

Categories: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Leave A Reply

Your email address will not be published.