বুধবার ৪ আশ্বিন, ১৪২৫ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ বুধবার

বাড়ছে সাইবার নিরাপত্তা ব্যয়

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: পৃথিবীজুড়েই সাইবার অপরাধ বাড়ছে। এজন্য সাইবার অপরাধসংক্রান্ত ব্যয়ও বাড়ছে। ২০১৯ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে সাইবার নিরাপত্তার পেছনে ব্যয় হবে কমপক্ষে ১৯ লাখ কোটি মার্কিন ডলার। ‘সাইবার নিরাপত্তা উদ্যোগ’ শীর্ষক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে এসব তথ্য তুলে ধরেছেন সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান বিজনেস ডেভেলপমেন্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট লুক ম্যারি। ১৯ নভেম্বর ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সফটওয়্যার বিভাগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সেমিনারে তিনি এসব তথ্য তুলে ধরেন। সাইবার অপরাধের ধরন দিন দিন বদলে যাচ্ছে উল্লেখ করে লুক ম্যারি বলেন, ইদানীং মোবাইল ফোনের এসএমএসের মাধ্যমেও হ্যাকিংয়ের ঘটনা ঘটছে এবং এ প্রবণতা দিন দিন বাড়ছে। এজন্য মোবাইল ব্যবহারে আরও সতর্ক হতে হবে বলে মন্তব্য করেন লুক ম্যারি। তিনি বলেন, মোবাইল ফোনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়াতে হবে এবং ব্যক্তিগত তথ্য আদান-প্রদানে সতর্ক হতে হবে। বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিং খুব দ্রুতগতিতে বাড়ছে। এজন্য হ্যাকারদের এখন প্রধান লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে মোবাইল ফোনÑ এমন মন্তব্য করেন আলোচকরা। এ সময় তারা মোবাইল প্রযুক্তি নিয়ে যারা কাজ করেন, তাদের মোবাইল সিকিউরিটি নিয়ে আরও বেশি গবেষণা করার পরামর্শ দেন। এছাড়া সেমিনারে ম্যালওয়ার নিয়েও আলোচনা হয়। এ বিষয়ে বক্তারা বলেন, ম্যালওয়ার এখন বৈশ্বিক ভাইরাসে পরিণত হয়েছে। পৃথিবীতে ২৯ মিলিয়ন ডিভাইস ম্যালওয়ার ভাইরাসের ঝুঁকিতে আছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সঠিক সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে বলে জানান লুক ম্যারি।

বাংলাদেশে সাইবার নিরাপত্তার পরিস্থিতি উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে সচেতনতা বাড়ছে। এটা নিঃসন্দেহে আশাব্যঞ্জক। তারা আশা প্রকাশ করেন, ভবিষ্যতে বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে পৃথিবীতে পরিচিতি লাভ করবে।
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ এম ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক সাইবার সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান সিপটরের প্রধান নির্বাহী মাইকেল জামান রডিন, সিটিও ফোরামের প্রেসিডেন্ট তপন কান্তি সরকার ও সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. তৌহিদ ভূঁইয়া। সেমিনারটির সহ-আয়োজক ছিল সিপটর ও সিটিও ফোরাম।
সভাপতির বক্তব্যে ড. ইউসুফ এম ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তিতে খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি সাইবার অপরাধও বাড়ছে। এখনই সময় সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করার। এ সময় তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের সাইবার হ্যাকিংয়ের উদাহরণ টেনে বলেন, ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ যেন না ঘটে, সেজন্য সাইবার নিরাপত্তা বাড়ানো ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Leave A Reply

Your email address will not be published.