বুধবার ১৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ ২ ডিসেম্বর, ২০২০ বুধবার

মোংলা বন্দরে পড়ে আছে অসংখ্য গাড়ি, নিলামে সাড়া নেই

অনলাইন ডেস্ক:-মোংলা বন্দরে দীর্ঘদিন পড়ে আছে আমদানি করা অসংখ্য রিকন্ডিশন গাড়ি। বন্দর কর্তৃপক্ষ নিলাম প্রক্রিয়া শুরু করলেও তেমন সাড়া নেই। ফলে বন্দরে তৈরী হচ্ছে গাড়ির পাহাড়। আর এ জন্য কাস্টমস কর্তৃপক্ষ আমদানিকারকদের দায়ের করা মামলাকে দায়ী করছে।   

মোংলা কাস্টম হাউজের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা (এ আরও) মোঃ মহিদ রিয়াদ জানান, মোংলা বন্দর ব্যবহার করে দুই শতাধিক গাড়ী আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান। নিয়মানুযায়ী আমদানি করা গাড়ী বন্দরে পৌঁছার ৩০ দিনের মধ্যে ছাড় করিয়ে না নিলে সরকারী নিলামের তালিকায় চলে যায় এসব গাড়ি। পরে শুল্ক ও রাজস্ব আদায়ে কাস্টম কর্তৃপক্ষ তা নিলামে তোলে। 

চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত গত এক বছরে বিভিন্ন ব্রান্ডের পাঁচ হাজার ৬’শ ৫৩ টি রিকন্ডিশন গাড়ী নিলামে ওঠে। এর মধ্যে মাত্র ৬ টি গাড়ী ক্রেতারা ছাড় করাতে পেরেছেন বলেও জানান তিনি।  

এছাড়া চলতি বছরের মার্চ মাসে নিলামে তোলা হয় ৫০ টি গাড়ী। এর মধ্যে মাত্র ২ টি গাড়ীর জন্য দরপত্র জমা পড়লেও তবে গাড়ী ছাড় হয়নি একটিও। 

সহকারী এ রাজস্ব কর্মকর্তা আরও বলেন, আমদানিকারকদের মামলার কারনে ক্রেতারা নিলামে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। 

জানতে চাইলে এ প্রসঙ্গে বারবিডার (বাংলাদেশ রিকন্ডিশন বেইকেলস ইনপোটারস এন্ড ডিলার্স এ্যাসোশিয়েসন) সভাপতি আব্দুল হক বলেন, ‘যদি কেউ মামলায় যায় কেন যায় আসলে আমি জানিনা, হয়ত মামলা করা একটা মৌলিক ও সাংবিধানিক অধিকার-এ ব্যাপারে আমি কোন মন্তব্য করতে চাইনা’। 

তবে এ ব্যাপারে মোংলা কাস্টম হাইজের কমিশনার মোঃ হোসেন আহম্মেদ বলেন, ‘আমরা জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআরের সাথে কথা বলেছি, আন্তঃ মন্ত্রনালয় বৈঠক করে এই সমস্যার সমাধান করবো’।  

বন্দর সুত্র জানায়, রাজধানীর সংঙ্গে দূরত্ব কম হওয়ায় ২০০৯ সাল থেকে দেশে আমদানি করা গাড়ী খালাস হয় মোংলা বন্দর দিয়ে। রবিবার (১৯ অক্টোবর ২০২০) পর্যন্ত গত ৯ বছরে এই বন্দর দিয়ে মোট গাড়ী আমদানি হয়েছে ১ লক্ষ ২৩ হাজার ৮১৯ টি। সে হিসেবে দেশে মোট আমদানির ৬০ ভাগ গাড়ী আসে মোংলা বন্দরে। 

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ট্রাফিক পরিদর্শক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমাদের বন্দরে বিভিন্ন শেড ও ইয়ার্ডে তিন হাজার ২৪ টি গাড়ী আছে। বর্তমানে দুই হাজার ৬’শ গাড়ির মত অকশনের তালিকায় আছে , যা নিলামযোগ্য। যার মধ্যে ৪৬৫ টি গাড়ী দীর্ঘদিন ২০১১ সাল থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে আমদানিকৃত। 

এই বিষয়গুলো নিলামের কার্যক্রমগুলো চলমান যা বিভিন্ন সময় মোংলা শুল্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিলাম দিচ্ছে কিন্তু গাড়ীগুলো নিলাম হচ্ছেনা। 

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/আয়েশা

Categories: অর্থনীতি,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.