সোমবার ১৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ ৩০ নভেম্বর, ২০২০ সোমবার

সাপাহারে ৩ বিঘা জমির ধান পুড়িয়ে বিনাশ

মো: আলমগীর হোসেন: সাপাহার উপজেলায় পূর্বশত্রুতার জেরে কৃষকের ধান ক্ষেতে বিষ দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার কাওয়াভাষা গ্রামের ইউসুফ আলীর প্রায় সাড়ে তিন বিঘা ধানি জমিতে মঙ্গলবার রাতে বিষ দেওয়া হয়। যার ফলে ধানগাছগুলো মরে যেতে শুরু করেছে, অনেক গাছের গোড়ায় এখনও বিষ পড়ে আছে। এ ঘটনায় ইউসুফ আলী বাদী হয়ে প্রতিবেশী আ: সামাদ ইসমাইল হোসেন ইউসুফ আলী ও মোসার বিরুদ্ধে সাপাহার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ইউসুফ আলী বলেন, বর্গা নিয়ে জমিতে ধান চাষ করেছি দুইমাস পরেই এই ফসল ঘরে উঠবে। কিন্তু এই সময় সামাদ ইসমাইল ইউসুফ ও মোসা শত্রুতার কারণে আমার মুখের খাবার কেড়ে নিলো। ইসমাইল সামাদ ও ইউসুফ সব সময় আমাকে হুমকি দিয়ে বলতো (১) বিঘা জমি আমাকে দিবি আর না হয় দেখে নিবো। আমি আমার কষ্টের টাকায় রাখা জমি না দেওয়াতে আমার এত বড় ক্ষতি করল। প্রায় সাড়ে তিন বিঘা জমিতে প্রায় ৭০/৮০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। এ জমিতে কোন ধান হবে না। আমি পথের ফকির হয়ে গেছি।

তিনি আরো বলেন, পরিবার নিয়ে কিভাবে বছর পার করবো জানিনা। বিষ খেয়ে মরে যাওয়া ছাড়া আমার আর কোনো পথ নেই। আমি দোষীদের সুষ্ঠ বিচার ও ক্ষতিপূরণ চাই বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন হতদরিদ্র এই কৃষক।

প্রতিবেশি সহবুল ইসলাম ও সাদিকুল ইসলাম বলেন, ইউসুফ আলী ও তার ছেলেদের ডাক চিৎকারে শুনে ছুটে এসে দেখি সারা জমিতে বিষ ছিটানো। আউয়াল হোসেন জানান, ধান নষ্ট হয়ে যাওয়ার কষ্ট কৃষক ছাড়া কেও বুঝবে না। কারন এই ধানেই চলে কৃষকের জীবন। আমার বাড়ির পাশেই ইউসুফ আলীর জমি। ভাইরা ভাই মিলে রাত দিন খেটে ফসল ফলিয়েছে, সেই ফসল যদি একরাতে শেষ করে দেয় তার চেয়ে মেরে ফেলা ভালো।

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুল হাই (নিউটন) জানান, জমিতে বিষ দেওয়ার বিষয়ে ইউসুফ আলী নামের এক কৃষক একটি অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিষেরবাশিঁ.কম/ডেস্ক/মৌ দাস

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.