মঙ্গলবার ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ ২৪ নভেম্বর, ২০২০ মঙ্গলবার

সাংবাদিকের সাথে মারমুখী আচরণে সেই কনস্টেবল প্রত্যাহার

বিষের বাশীঁ: দৈনিক সংবাদচর্চার ও সাপ্তাহিক বিষের বাঁশির স্টাফ রিপোর্টার সামিতুল হাসান নিরাকের সাথে অশোভন ও মারমুখী আচরণ করা সেই কনস্টেবলের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান।

সোমবার রাতে ওসি আসাদুজ্জামান বলেন, কনস্টেবল আমিনুলকে ক্লোজ করা হয়েছে। এটা তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা। ভবিষ্যতে কোন সদস্য এরকম আচরণ করলে তার বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জেলা পুলিশ এ বিষয়ে কঠোর।

গত শনিবার সন্ধ্যায় শীতলক্ষ্যার তীরবর্তী ওয়াকওয়েতে সাংবাদিক সামিতুল হাসান নিরাকের সাথে অশোভন ও মারমুখী আচরণ করে কনস্টেবল আমিনুল।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক সামিতুল হাসান নিরাক বলেন, সন্ধ্যায় সদর মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা এসে শীতলক্ষ্যার তীরবর্তী স্থান ত্যাগ করার জন্য অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে উপস্থিত সকলকে। আমি সেখানে সংবাদ সংগ্রহের জন্য যাওয়ায় তাদের কাছে নিজের পরিচয় দেই। কিন্তু তারা কোন কথা না শুনে আমার দিকে তেড়ে এসে চলে যাবার জন্য গালিগালাজ করে। আমি তাকে আবারও গণমাধ্যমকর্মী বলে পরিচয় দিলে সে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে বলে, এইসব সাংবাদিকের বেল নাই। এ সময় তাকে গালিগালাজ করতে না করলে সে আমাকে পাশ থেকে একটি চেয়ার তুলে সেটি দিয়ে সজোরে আঘাত করে

বিজ্ঞাপনটি দেখতে ক্লিক করুন

প্রসঙ্গত, সদর মডেল থানা পুলিশের কয়েকজন সদস্যের বিরুদ্ধে এর আগেও সাংবাদকর্মীকে মারধর ও অশোভন আচরণের অভিযোগ ওঠে। গত বছরের ২৭ নভেম্বর রাতে শহরের কালিরবাজার চারারগোপ এলাকায় অনলাইন নিউজ পোর্টাল নারায়ণগঞ্জ বার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকমের সংবাদকর্মী রাব্বি মারধর করে সদর মডেল থানার দুই পুলিশ সদস্য।

সে সময় নারায়ণগঞ্জ বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার রাব্বি জানায়, ওই রাতে আমি কালিরবাজারে ডাব আনতে যাই। পরে দুইজন পুলিশ সদস্য আমাকে বলে তর সাথে কি আছে? আমি বললাম কিছু নাই। তখন আমাকে ওনার হাতে থাকা ফাইবারের রোলার দিয়ে পেটাতে থাকে। পরে আমি বললাম আমি একজন স্টুডেন্ট এবং পাশাপাশি একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে কাজ করি। তখন আমাকে অন্ধকারে নিয়ে আরও মারধর করে চলে যায়।

একি বছরের ১৭ জুন শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সামনে বেসরকারি টেলিভিশনের ক্যামেরা পারসন মো. মিকাঈলের সাথে মারমুখী আচরণ করে সদর মডেল থানার কনস্টেবল মারুফসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য। এ সময় সিনিয়র সাংবাদিকরা এগিয়ে এলে তাদের সাথেও অশোভন আচরণ করে ওই পুলিশ সদস্যরা। পরে কনস্টেবল মারুফসহ তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

বিষেরবাশিঁ.কম/ডেস্ক/মৌ দাস

Categories: অপরাধ ও দুর্নীতি,নারায়ণগঞ্জের খবর,শীর্ষ সংবাদ,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.