মঙ্গলবার ৩০ আষাঢ়, ১৪২৭ ১৪ জুলাই, ২০২০ মঙ্গলবার

দাউদকান্দিতে মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায়ের বাড়ি দখলে বিএনপি নেতার যতো অত্যাচার

অনলাইন ডেস্ক: নিজের পৈত্রিক জমিতে বৃক্ষরোপণ করতে গেলে মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায়কে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে মজিবুর রহমান ভূঁইয়া নামে এক স্থানীয় বিএনপি নেতা। বুধবার সকালে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে এ ঘটনা ঘটে। তবে স্থানীয়দের বাধার কারণে, প্রাণে বেঁচে যান রনজিৎ রায়।

গত রবিবার কুমিল্লার দাউদকান্দির বারপাড়া ইউনিয়নের বারইকান্দি গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায়ের বাড়ির জমি দখল করতে ঢোকার প্রবেশপথ বন্ধ করে বেড়া দিয়েছিলেন মজিবুর রহমান ভূঁইয়া। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বেড়াটি সরিয়ে ফেলা হয়।মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায় এবং তার কাকাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের জমিতে বিভিন্ন সময়ে মজিবুর রহমান ধর্মীয় স্থাপনা এবং দেয়াল নির্মাণ করেছেন। এ ঘটনায় নিত্যানন্দ রায়ের ছেলে নির্মল রায় দাউদকান্দি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিল। এ মামলায় মজিবুর রহমাহনকে প্রধান আসামী করে পুলিশ চার্জশিটও দিয়েছে।

ভুক্তভোগীদের পরিবারের পক্ষ থেকে জানা যায়, রনজিৎ রায় এবং তার কাকাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের জমি দখলে নিতে দীর্ঘদিন ধরেই অপচেষ্টা চালাচ্ছেন স্থানীয় মজিবুর রহমান ভূঁইয়া। তবে দেশে করোনা মহামারীর এই ক্রান্তিলগ্নে সবাই যখন করোনা নিয়ে ব্যস্ত ঠিক তখনই মজিবুর রহমান ভূঁইয়া জমি দখলের বিষয়ে সক্রিয় হয়ে ওঠেন।

ভুক্তভোগী রনজিৎ রায় জানান, ‘আমার বসতবাড়ির অব্যবহৃত জমিতে বৃক্ষরোপনের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। স্থানীয় একজনকে দিয়ে জমিতে গর্ত করে রবিবার সকালে সেই গর্তে আরও কিছু কাজ করা হয়েছিল। কিন্তু পরে জানতে পারি, মুজিব আমার বাড়ির প্রবেশপথ বন্ধ করে বেড়া নির্মাণ করেছে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বেড়াটি সরানো হয়। তবে আজ বুধবার পুনরায় বৃক্ষরোপন করতে গেলে মুজিব প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে আমাকে আক্রমণ করে। স্থানীয়দের সাহায্যে আমি কোনমতে বেঁচে ফিরে আসি।’

রনজিৎ রায় আরও বলেন, স্বাধীন দেশে আমাকে এই দিনও দেখতে হলো? এর আগেও মজিবুর আমার বাড়ির জমি ও আমার মায়ের সমাধির জায়গা দখল দেয়াল ও ধর্মীয় স্থাপনা বানিয়েছে। নিজের বসত ভিটা থাকার পরও আমি ভয়ে সেখানে থাকতে পারি না। অন্যের জায়গায় ভাড়া থাকি। নিত্যানন্দ রায়ের ছেলে নির্মল রায়ের করা মামলায় স্বাক্ষী হওয়ায় মজিবুর আমাদের বিরুদ্ধে কোর্টে মিথ্যা অভিযোগ এনে চাদাবাজির মামলায় করেছে। এ মামলায় আমায় দুই ছেলেকেও আসামী করেছে। মূলত আমার ও কাকাতো ভাইয়ের জমি দখলের জন্যই দীর্ধদিন ধরে সে আমাদের পরিবারের উপর নানারকম অবর্ণনীয় অত্যাচার করে আসছে।আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাকে জানে মারার হুমকি দিয়ে মারতে আসার ও দীর্ঘদিন ধরে আমার পরিবারের উপর চালানো অত্যাচারের বিচার চাই।

সূত্র: কুশল বরণ চক্রবর্ত্তী

বিষেরবাশিঁ.কম/ সংবাদদাতা /নিরাক

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.