সোমবার ৩ পৌষ, ১৪২৫ ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ সোমবার

ঢাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ধস্তাধস্তি

  • অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সিনেটে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শিক্ষক ও ছাত্রদের মধ্যে হাতাহাতি, ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় দুইজন শিক্ষক সহ কয়েকজন ছাত্র আহত হয়েছেন।

শনিবার সিনেট ভবনে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনের জন্য বিশেষ অধিবেশন ছিলো। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে বাম ছাত্র সংগঠন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফ্রন্ট ও ছাত্র ফেডারেশনের নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে সিনেট ভবনের ফটকে জড়ো হন। তারা ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা ফটক ভেঙে ভেতরে ঢুকে যান।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক এম আমজাদ আলী, সহকারী প্রক্টর রবিউল ইসলামসহ কয়েকজন শিক্ষক ও কর্মকর্তারা ফটকের ভেতরে অবস্থান করছিলেন। তারা শিক্ষার্থীদের বাধা দিলে দুপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি, ধস্তাধস্তি হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের প্রভাষক রাকিবুল হাসান সহ দুই শিক্ষক আহত হন। রাকিবুল হাসান প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের ঢাবি শাখা সাধারণ সম্পাদক সালমান সিদ্দিকী ইত্তেফাককে বলেন, ‘সিনেটে পাঁচজন নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধি থাকার কথা। কিন্তু গতকালের সিনেট অধিবেশনে সেটা ছিলো না। এজন্য আমরা ভিসি অফিসের সামনে মিছিল নিয়ে যায়। সিনেট ভবনের গেট বন্ধ ছিলো। বাইরে পুলিশ, প্রক্টর সহ কয়েকজন শিক্ষক ছিলেন। আমরা ভেতরে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করতে চাইলে তারা আমাদের বাধা দেন। এক পর্যায়ে আমরা গেট ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে শিক্ষকরা আমাদের ওপর চড়াও হন। এতে তাদের কয়েকজন কর্মী আহত হন বলে তিনি দাবি করেন।

প্রক্টর অধ্যাপক এম আমজাদ আলী বলেন, ‘ছাত্ররা ডাকসু নির্বাচনের দাবি নিয়ে আসছিলো। আমরা তাদেরকে গেটের বাইরে কর্মসূচি পালনের জন্য বলি। কিন্তু তারা গেট ভেঙে ভেতরে আসে। এসময় আমরা কয়েকজন শিক্ষক বাধা দিলে একটু ঠেলাঠেলি হয়।’ তিনি বলেন, ‘ছাত্ররা আমাদের লাথি, ঘুষি মারছে শিক্ষক হিসেবে এগুলো বলতে চাচ্ছিনা।’ গণতান্ত্রিক অধিকার আদায় করতে যেয়ে অন্যেরটা যেনো খর্ব না হয় সেটা লক্ষ্য রাখতে হবে বলে এসময় তিনি বলেন।

তিনজনের উপাচার্য প্যানেল ঘোষণা
এদিকে, বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের প্যানেল সাদা দলের সিনেট অধিবেশন বর্জন, সরকার সমর্থকদের একাংশের আপত্তি এবং শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মধ্যে সিনেটে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে তিনজনের উপাচার্য প্যানেল ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বর্তমান কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দীন ও বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক ডিন মো. আব্দুল আজিজ। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিনেট সদস্য অধ্যাপক এ জে এম শফিউল আলম ভূইয়া।

আগামী ২৪ আগস্ট আরেফিন সিদ্দিকের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে এই তিনজনের মধ্য থেকে নতুন উপাচার্যকে বেছে নেবেন বিশ^বিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

বি.বা/ডেস্ক/ক্যানি

Categories: শিক্ষা

Leave A Reply

Your email address will not be published.