শনিবার ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ শনিবার

সাবেক প্রেসিডেন্টের ছেলে এরিক এরশাদকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন

অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় সংসদে বিরোধীদল জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মরহুম হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে এরিক এরশাদ। সে বর্ত মানে বাসভবন প্রেসিডেন্ট পার্কে অবস্থান করছেন। তবে অভিযোগ উঠেছে সেখানে অটিস্টিক এরিককে ঠিকমত খেতে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি তাকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতনও করা হচ্ছে। এমন অভিযোগ এরিকের মা এরশাদের সাবেক দ্বিতীয় স্ত্রী বিদিশার।

বিদিশা বলেন, এরিক তাকে জানিয়েছেন, ওই বাসার এক গাড়িচালক তাকে প্রায়ই মারধর করেছে। কেউ তাকে একবেলার বেশি খেতে দেয় না। গত বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) এরিক তার মাকে ফোন করে বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবনে আসতে বলেন।

ছেলের ফোন পেয়েই বিদিশা পাগলের মতো সেখানে ছুটে যান। অনেকদিন পর মা ছেলে একসঙ্গে হয়ে অঝোরে কাঁদতে থাকে। এক পর্যায়ে কান্না থামলে তিনি ছেলেকে নিজ হাতে গোসল করান। নিজের হাতে রান্না করা পোলাও রোস্ট খাইয়ে দেন। এরপর মা ছেলে মিলে নানা খোশগল্পে মেতে উঠেন।

ভাগাভাগি করতে থাকে দীর্ঘদিনের সুখ-দুঃখের। ঘটনার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর রটে যায় প্রেসিডেন্ট পার্কে বিদিশা ও এরিক অবরুদ্ধ অবস্থায় আছেন। তাদের বের হতে দেয়া হচ্ছে না।

তবে বিদিশা পরে গণমাধ্যমে জানান, বিষয়টাকে অবরুদ্ধ বলা যাবে না। তবে বাইরে থেকে অন্য কাউকে প্রেসিডেন্ট পার্কে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। বিদিশা তার ছেলেকে সঙ্গে রাখার দাবি জানিয়ে বলেন, আমিই এরিকের আইনগত অভিভাবক (লিগ্যাল গার্ডিয়ান)।

এরিকের সঙ্গে আমি থাকতে চাই। এরিক আমাকে এখানে থাকতে বললে থাকব। আর যদি আমার সঙ্গে গুলশান যেতে চায় তাহলে সেখানে নিয়ে যাব। এদিকে, ছেলে এরিকের সঙ্গে বিদিশার ফোনে প্রথম কী কথা হয়েছিল তা শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) ফেসবুকে প্রকাশ করেছেন বিদিশা। সেখানে লিখেছেন…এরিক: মা গতকাল ইউটিউব দেখে আমি অনেক রান্না শিখছি। মা: গুড নিউজ। তাহলে তো বাবা রান্না করবে আর মা খাবে। এরিখ: না মা, তোমার জন্য আমি সব লিংক ডাউন করে রাখছি। ডেইলি তুমি নিউ ডিশ বানাবে লিংক দেখে দেখে। জানো মা ওরা না আমাকে জাস্ট দুপুরে একবেলা খেতে দেয়।

সকাল নাশতা আর রাতেও কিছু খেতে দেয় না। মা: তাহলে খিদে পেলে কি খেতে তুমি? এরিখ: আব্বু মারা যাওয়ার আগে বিস্কিট আর মিনারেল ওয়াটার রেখে গিয়েছিল আমার রুমে। বিস্কিট তো কবে শেষ। মিনারেল ওয়াটার বোতলগুলো অনলি আছে। এরপর বিদিশা ক্ষোভ প্রকাশ করে লেখেন, এরিক একজন সাবেক প্রেসিডেন্টের ছেলে হয়েও খেতে পায়নি। ডাইভার অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও মারধর করেছে এরিককে।

বিষেরবাঁশি.কম/ডেস্ক/মৌ দাস

Categories: রাজনীতি

Leave A Reply

Your email address will not be published.