সোমবার ১ আশ্বিন, ১৪২৬ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সোমবার

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা (ভিডিও সহ)

অনলাইন ডেস্ক: দুষ্টের দমন ও সৃষ্টের পালনে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের পবিত্র জন্মাষ্টমী উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়েছে। সেখানে শ্রীকৃষ্ণ রূপের সাজে শিশুসহ ছোট বড় সকল বয়সের মানুষ অংশ গ্রহণ করেন।সনাতন ধর্মালম্বীদের দাবি, ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এ দিনে বিশ্বের শান্তি ও মঙ্গলের জন্য পৃথিবীতে এসেছিলেন। তিনিই মানুষের দুঃখ দূর করবেন। এ পাপী জীবন থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র পথই তিনি।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) সকাল ১০টায় শহরের দেওভোগ এলাকার লক্ষ্মী নারায়ণ আখড়া থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাটি বের হয়। পরে ডায়মন্ড হল চত্ত্বরের সামনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন। শোভাযাত্রাটি বের হয়ে ডিআইটি, মন্ডলপাড়া ব্রীজ ঘুরে, আবার ২নং রেল গেট হয়ে চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর যায়। সেখান থেকে ঘুরে পুনরায় মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়। যেখানে নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন এলাকার মন্দিরের ছোট, বড় র‌্যালী শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন। জন্মষ্টমী উপলক্ষ্যে বিকালে পূজা অর্চনা, ধর্মীয় সঙ্গিত ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

https://www.facebook.com/bisherbashi24/videos/519386491937039/

জানা গেছে, হিন্দু পুরান মতে দুষ্ট শক্তি যখন ন্যায়নীতি, সত্য ও সুন্দরকে গ্রাস করতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সেই অশুভ শক্তিকে দমন করে মানবজাতির কল্যান এবং ন্যায়নীতি প্রতিষ্ঠার জন্য ভাদ্র মাসের শুক্রপক্ষের অষ্টমী তিথিতে মথুরার রাজ পরিবার যাদব বংশের বসুদেব ও দেবকীর অষ্টম পুত্র হিসাবে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ জন্মগ্রহণ করেন। এদিকে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মষ্টমী উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ বিভিন্ন মন্দির সহ দেওভোগ ইসকন মন্দিরের বিশেষ পূজা অর্চনা শুরু হয়েছে। দিনটিকে বিশেষ ভাবে পালন করতে আয়োজন করা হয়েছে বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান। অন্যদিকে কৃষ্ণের জন্মষ্টমী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন মন্দিরে সনাতন ধর্মালম্বীদের সকাল থেকে ভীড় করতে দেখা গেছে। সারাদিন উপবাস থাকে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের পূজা অর্চনা শেষে রাতে প্রসাদ গ্রহণ করবেন তারা। প্রসঙ্গত মথুরার রাজা মহারাজ উগ্রসেন সম্পর্কে দাদু, সে সূত্রে কংস দেবকীর ভ্রাতা হন। কংস অত্যাচারী হলেও ভগ্নী দেবকীকে খুবই ভালবাসতেন এবং যাদব বংশের আরেক রাজ পুত্র বসুদেবের সঙ্গে দেবকীর বিয়ে দিয়েছিলেন। বিয়ের পর কংস শখ করে বোন আর ভগ্নিপতিকে নিয়ে রথে চড়ে নগর পরিক্রমায় বের হলে কংস দৈববাণীতে শুনতে পান যে দেবকীর অষ্টম গর্ভের পুত্র সন্তানই তাঁকে বধ করবে। সেই থেকে কংস বসুদেব ও দেবকীকে তাঁর কারাগারে বন্দী করে রাখেন। একে একে দেবকীর গর্ভের সাতটি সন্তান জন্মগ্রহণ করে এবং অত্যাচারী কংস তাদের হত্যা করেন। এরপর দেবকী অষ্টমবারের মতো সন্তানসম্ভবা হলে কারাগারে বসানো হয় কঠোর নিরাপত্তা। চারদিকে আলোয় উদ্ভাসিত করে অষ্টমী তিথিতে অরাজকতার দিন অবসান করতে গভীর অন্ধকারে রাতে জন্মগ্রহণ করেন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ।

বিষেরবাঁশি.কম/ডেস্ক/নাদিম

Categories: নারায়ণগঞ্জের খবর,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.