রবিবার ১৭ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ ৩১ মে, ২০২০ রবিবার

পৃথিবীর যতো কাশ্মীর

অনলাইন ডেস্ক (সুভাষ সাহা): ভারতের কাশ্মীর নিয়ে কিছু বলতে গিয়ে আটকে গেলো পাকিস্তান, তাকে জ্বালাচ্ছে বড্ড বেলুচিস্তান। সেটা দেখে হাসতে গিয়ে চীন খেয়াল করলো তিব্বতের হাবভাব সুবিধার না, উইঘুররাও গম্ভীর কেনো যেনো। চীনকে সতর্ক করলো রাশিয়া, হঠাৎ পেছনে টোকা দিলো কে যেনো, ঘুরে দেখে ক্রিমিয়া। মনে মনে খুশি হলো ফ্রান্স, কিন্তু একি! বাস্কের লোকেরা হঠাৎ খেপলো কেনো! এদিকেই আসছে নাকি? পাশে স্পেন মুচকি হাসতেই সোজা বার্সেলোনা থেকে হাত বাড়িয়ে পিঠে চিমটি কাটলো কাতালানরা! ঘটনা সুবিধার না দেখে পালাতে গিয়েই স্কটল্যান্ডের ট্যাকলে হোঁচট খেয়ে পড়লো ইংল্যান্ড, সাথে উত্তর আয়ারল্যান্ডও হালকা বসিয়ে দিলো দু ঘা! থামো সবাই, বললো জার্মানি। পেছন থেকে বাভারিয়া বললো, ‘তুই থাম’। এদিকে সার্বিয়া ঘেমেটেমে বসতে গিয়ে দেখে চেয়ার সরিয়ে ফেলেছে কসোভো। তুরস্ক ওসব ওদের ব্যাপার বলে ঘরে ঢুকতেই দেখে ঘর খালি করে সব নিয়ে পালিয়েছে কুর্দিস্তান! বলেছিলাম সাবধান থাকতে, বলতে বলতেই সৌদি আরব খেয়াল করলো পেছন থেকে ইয়েমেনের হালকা কান্নার সাউন্ড আসছে। এসব দেখে ইসরাইল যেইনা অট্টহাসি দিবে, সাথেসাথে ফিলিস্তিন মুখ বরাবর ছুঁড়ে দিলো হামাস পরিচালিত কফোঁটা থুথু! টিস্যু পেপারটা বাড়াতে গিয়েই ইতালি খেয়াল করলো মানিব্যাগটা মেরে দিয়েছে সার্ডিনিয়া! পুরো মাসের সম্বল শেষ!এসব দেখে মরক্কো বললো, ‘আমিই শান্তিতে। চিনেনা কেউ।’ পেছন থেকে পশ্চিম সাহারা বললো, ‘আপনি আমারে চিনেন তো, নাকি?’ গ্রীস বললো, ‘ডাকবো নাকি আর্কিমিদিসকে, সব অংক কষে ঠিক করে দিবে!” সাইপ্রাস বললো, ‘আগে আমার পেটে তোমার কয়টা অবৈধ সেনা আছে ক্যালকুলেট করো দেখি?’ এবার ময়দানে নামলো ইরান। কিন্তু নামার আগেই দেখে লাঠিসোটা নিয়ে ওয়েট করছে খুজেস্তান। বড় বড় দেশের ভীড়ে আজারবাইজান সাইড চাপতেই শুনে আর্টসাখ থেকে আসা আর্মেনিয়ান বড়ভাইরা তাকে রেগের জন্য ডেকেছে গণরুমে! এত চেঁচামেচি কিসের? চেঁচালো ইন্দোনেশিয়া। এদিকে আয়, বুঝাই তোকে। বললো জাভা।ওদিকে মালয়েশিয়া ঢোক গিললো, দেখে সামনে সাভাহ, হাতে চাপাতি। বাসায় ব্যান্ডেজ নিয়ে ঢুকলো অস্ট্রেলিয়া। বউ বললো নির্ঘাত সেই ইবলিশের বাচ্চা তাসমানিয়ার কাজ, তাইনা? চিলিকে ভয়ে ভয়ে টোকা দিলো রাপা নুই। ‘ভাইয়া একটা গান শুনাই?’কানপেতে ব্রাজিল বললো, শুনাও দেখি। পেছন থেকে কান বরাবর রামচড় কসালো সাও পাওলো! এদিকে পাতাগোনিয়ার হাতে পড়ে তখন আর্জেন্টিনা দুশো সাতাশ বারের মতো কানেধরে উঠবস দিয়ে ফেলেছে! মেক্সিকো চুপচাপ মেক্সিকান রাইস উইথ চিকেন উইংস খাচ্ছিলো। হঠাৎ খেয়াল করলো খাবারে তেলাপোকা মিশিয়েছে হতচ্ছাড়া জাপাতিস্তা! কানাডার ঘুম ভাঙলো, ‘এতো শব্দ কিসের?’ কিছু বুঝার আগেই মুখে বালিশচাপা দিলো কুইবেক, ‘ঘুমা এবার চিরশান্তিতে’! সবশেষে মঞ্চে আসলো ইউনাইটেড স্টেটস অব আমেরিকা। ‘থামুন সবাই’। ধীরেসুস্থে সেনা পাঠিয়ে সবকিছুর সল্যুশন হবে। হাওয়াই বললো, ‘তাই নাকি?’ পুয়ের্তো রিকো মুখ ভ্যাংচালো! আর টেক্সাস কিছুই বললোনা। শুধু তাকিয়ে রইলো একদৃষ্টিতে। এসব দেখে অবশেষে হাপাঁতে হাঁপাতে ঘরে ঢুকলো মিয়ানমার। মেইল করলো বাংলাদেশকে সব জানিয়ে। কিন্তু সেন্ড বাটনে ক্লিক করা মাত্রই মাথায় বাড়ি, পেছন ফিরে দেখে মুচকি হাসছে রোহিঙ্গারা, এরপর আর কিছু মনে নেই! মিয়ানমারের মেইল পেয়ে সব জানার পর বুক দুরুদুরু করে উঠলো বাংলাদেশের। হঠাৎ খেয়াল করলো মানচিত্রে চিটাগাং হিল ট্র্যাকসগুলো আজ বেশিই রক্তরাঙা লাগছে! বিষেরবাঁশি.কম/ডেস্ক/মৌ দাস.

Categories: খোলা বাতায়ন,চিত্র-বিচিত্র,বিনোদন

Leave A Reply

Your email address will not be published.