শনিবার ৯ ভাদ্র, ১৪২৬ ২৪ আগস্ট, ২০১৯ শনিবার

কোনও বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজির মৃত্যু হয়নি

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে এক কিংবদন্তি নেতা সুভাষচন্দ্র বসু। নেতাজি সুভাষ বসুর মৃত্যুর অমীমাংসিত রহস্যের এখনও কোন সমাধান পাওয়া যায়নি। কিভাবে মৃত্যু হয়েছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর? সেই উত্তর খুঁজতে ভারত সরকার তিনটি কমিশন গঠন করেছে। এর মধ্যে ১৯৫৬-র শাহনওয়াজ কমিটি ও ১৯৭০-এর খোসলা কমিশন বলেছে ১৯৪৫-এর ১৮ অগাস্ট এক বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে সুভাষচন্দ্র বসুর। আর ১৯৯৯-এর মুখার্জি কমিশন বলছে, নেতাজির মৃত্যু কোনও বিমান দুর্ঘটনায় হয়নি। যদিও মুখার্জি কমিশনের এই ব্যাখ্যা খারিজ করে দিয়েছে সরকার। কিন্তু, নেতাজির মৃত্যুর ব্যাখ্যা বারবার উঠে এসেছে বিভিন্ন সূত্র থেকে।

প্যারিসের ঐতিহাসিক জেবিপি মোরে সম্প্রতি ফ্রান্সের এক গোপন রিপোর্ট পেয়েছেন। ন্যাশনাল আর্কাইভ থেকে পাওয়া ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে বিমান দুর্ঘটনায় মারা যাননি নেতাজি। ১৯৪৭-এ অর্থাৎ ভারত স্বাধীন হওয়ার সময়ই তিনি বেঁচে ছিলেন। মোরে জানিয়েছেন, ‘ওই নথিতে কোথাও উল্লেখ নেই যে বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজির মৃত্যু হয়েছে। বরং বলা হয়েছে, ১৯৪৭-এর ডিসেম্বরেও তিনি নিখোঁজ। অর্থাৎ, ৪৫-এর অগাস্টে বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যুর কথা অস্বীকার করা হয়েছে।’

মোরে ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, ৪৭-এর ১১ ডিসেম্বর যখন তাঁর সন্ধান চলছে তখন বলাই যায় যে তখনও তাঁকে মৃত বলে ধরা হয়নি। “Archival Information on Subhas Chandra Bose” শিরোনামের ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, নেতাজি ইন্ডিয়ান ইন্ডিপেন্ডেন্স লিগের প্রাক্তন প্রধান ও জাপানি সংগঠন ‘হিকারি কিকান’-এর সদস্য। তিনি ভারত থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে, তবে কিভাবে তা ব্যাখ্যা করা হয়নি।

ব্রিটেনে ও জাপান বিমান দুর্ঘটনার কথা স্বীকার করলেও ফ্রান্স বরাবরই এই ইস্যুতে নিশ্চুপ থাকে। সাইগন থেকে টোকিওর দিকে যাওয়ার পথেই দুর্ঘটনায় নেতাজি মারা যান বলে জানা যায়। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন ফরাসি এই রিপোর্টকে গুরুত্ব দিতে হবে।

বিষেরবাঁশি.কম/ডেস্ক/মৌ দাস.

Categories: আন্তর্জাতিক

Leave A Reply

Your email address will not be published.