শনিবার ৯ ভাদ্র, ১৪২৬ ২৪ আগস্ট, ২০১৯ শনিবার

বাউন্ডারির হিসাবে চ্যাম্পিয়ন নির্বাচন

অনলাইন ডেস্ক: দুই দলের নির্ধারিত ১০০ ওভারে ম্যাচ টাই হওয়ার পর সুপার ওভারেও টাই! বিশ্বকাপ ক্রিকেটে এমন ফাইনাল আগে দেখা যায়নি। বিজয়ী দল। বাউন্ডারি সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে নির্ধারিত হয়েছে। তবে এ নিয়মে আপত্তি তুলেছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা। সে দলে যোগ দিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টেড ও ব্যাটিং কোচ ক্রেইগ ম্যাকমিলান। তাঁরা বলেছেন এভাবে চ্যাম্পিয়ন নির্বাচন করার চেয়ে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করলেই পারত আইসিসি।

দুই দলের জন্য নির্ধারিত মোট ১০০ ওভার শেষে ম্যাচ টাই। তাই খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও শেষ বলটির পর ম্যাচ টাই! কিন্তু টাই হলেও জয়ের আনন্দ নিয়ে ছুটেছেন জস বাটলার। বেয়ারস্টো আর জো রুট মেতেছেন জয়োল্লাসে। লর্ডসের গ্যালারিতে ইংলিশ সমর্থকেরাও নিজেদের ঐতিহ্য গাম্ভীর্য ভুলে ভেসেছেন বিশ্বকাপজয়ের আনন্দে। আসলে সুপার ওভারেও দুই দলের স্কোর সমান হলেও খুব অদ্ভুত একটি নিয়মের মারপ্যাঁচে পড়ে হার নিশ্চিত হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের।

সেটি সুপার ওভারের নিয়মের জন্য। সুপার ওভারে যদি দুই দল সমান রান করে, তখন বাউন্ডারির হিসাব চলে আসে। মূল ম্যাচ ও সুপার ওভার মিলিয়ে যে দল সবচেয়ে বেশি বাউন্ডারি মারবে, তারাই জিতবে সুপার ওভার। আর এ হিসাবে ইংল্যান্ড মেরেছে ২৪ বাউন্ডারি, নিউজিল্যান্ড ১৬টি। অর্থাৎ ইংল্যান্ডই জয়ী। অনেকেই বলছেন, এমন ম্যাচে আসলে কেউ হারেনি। অদ্ভুত বাউন্ডারি নিয়মে শিরোপা নির্দিষ্ট কোনো দলের হাতে তুলে না দিয়ে দুই দলকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা উচিত ছিল।

কিউই কোচ গ্যারি স্টেডও আছেন এই দলে। আইসিসির উচিত ছিল দুই দলকেই যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা। তিনি বলেন, ‘যখন সাত সপ্তাহ ধরে দুই দল প্রচণ্ড চ্যালেঞ্জিং একটা টুর্নামেন্ট খেলে এবং ফাইনাল ম্যাচের একশ’ ওভার ও সুপার ওভারের পরেও যখন দুই দলকে আলাদা করা না যায়, তখন এই বিষয়টা (ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড উভয়কে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা) আইসিসি চাইলে মাথায় রাখতে পারত।’

প্রধান কোচের সঙ্গে একমত হয়েছেন ব্যাটিং কোচ ক্রেইগ ম্যাকমিলানও, ‘আমি বললেই তো আর খেলার ফলাফল পরিবর্তন হবে না। তবে সাত সপ্তাহব্যাপী এত বড় একটা টুর্নামেন্টের পর ফাইনালেও যখন দুটো দলকে আলাদা করা না যায়, তখন দুই দলকেই চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা যেত। এটাই হতো উপযুক্ত ফলাফল। এবার হয়নি সেটা। কিন্তু এটাই খেলা আর খেলার নিয়মগুলো আমাদের মানতে হবে।’

বিষেরবাঁশি.কম/ডেস্ক/মৌ দাস.

Categories: খেলাধূলা

Leave A Reply

Your email address will not be published.