সোমবার ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ সোমবার

প্রথম ধাপে নয় হাজার অসহায় মানুষ হাতে পেল সেলিম ওসমানের ঈদ উপহার

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের উদ্যোগে আসন্ন ঈদে প্রতিটি অসহায় পরিবারের মুখে হাসি ফুটাতে তাঁর দেওয়া ঈদ সামগ্রীর ৩৮ হাজার প্যাকেটের মধ্যে ৩টি ইউনিয়নের অসহায় মানুষের হাতে ৯ হাজার প্যাকেট তুলে দেওয়া হয়েছে। তীব্র গরমে সারিবদ্ধ ভাবে লাইনে দাড়িয়েও সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে দেওয়া ঈদ উপহার সামগ্রী হাতে পেয়ে এসব অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে।

শুক্রবার ৩১ মে সকাল ৯টায় সদর উপজেলার গোগনগর ইউনিয়নের বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ এবং আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়ের পাড় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শেখ রাসেল ভবন থেকে এসব ঈদ সামগ্রীর প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে। গোগনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নওশেদ আলী এবং আলীরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতির পরিষদের অন্যান্য সদস্যদের সাথে নিয়ে ৩হাজার করে মোট ৬ হাজার প্যাকেট বিতরণ করেছেন। এর আগের দিন ৩০ মে বৃহস্পতিবার মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম.এ সালাম নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আরো ৩ হাজার অসহায় মানুষের হাতে এমপির দেওয়া ঈদ সামগ্রীর অসহায় মানুষের হাতে তুলে দিয়েছেন।

এদিকে শনিবার সকাল ৮টা থেকে বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়ন, মুছাপুর ইউনিয়ন, বন্দর ইউনিয়ন এবং কলাগাছিয়া ইউনিয়ন সহ পর্যায়ক্রমে শহর ও বন্দরে অবস্থিত সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ড এলাকায় এমপি প্রদত্ত ঈদ উপহার সামগ্রী অসহায় মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

এবছর সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩৫ হাজার ৫০০ প্যাকেট এবং ব্যবসায়ী সংগঠন বিকেএমইএ এর পক্ষ থেকে বাকি ২ হাজার ৫০০ প্যাকেট সহ মোট ৩৮হাজার প্যাকেট ঈদ সামগ্রীর বিতরণ করা হবে।

প্রতি প্যাকেট রয়েছে ১টি শাড়ি অথবা ১টি লুঙ্গি, ১ কেজি প্রাণ চিনিগুড়ো চাল, ১ কেজি তীর চিনি, ১ লিটার তীর সয়াবিন তেল, ৪০০ গ্রাম প্রাণ গুড়ো দুধ, ৪০০ গ্রাম লাচ্ছা সেমাই। একটি পরিবারে কমপক্ষে ৪ জন সদস্য হিসেব করে এই প্যাকেট গুলো করা হয়েছে। যেখানে আনুমানিক মোট ব্যয় হয়েছে প্রায় ৩ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য এমপি সেলিম ওসমান ২০১৪ সালে উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে তাঁর নির্বাচনী এলাকার আওতাধীন সিটি কর্পোরেশনের ১৭টি ওয়ার্ড এবং দুটি উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় অসহায় দরিদ্র মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান করে থাকেন। যার মধ্যে ২০১৪ সালে ২০ হাজার প্যাকেট, ২০১৫ সালে ২৬ হাজার প্যাকেট, ২০১৬ সালে ৫০ হাজার প্যাকেট, ২০১৭ সালে ২০ হাজার প্যাকেট এবং ২০১৮ সালে ২০ হাজার প্যাকেট ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। প্রতি প্যাকেটে ছিল, ১টি শাড়ি/ ১টি লুঙ্গি, ১ কেজি ফ্রেস চিনি, ৪০০ গ্রাম গুড়ো দুধ, ১ লিটার ফ্রেস সয়াবিন তেল, ১ কেজি প্রাণ চিনি গুড়া চাল, ৪০০ গ্রাম চিকন সেমাই। উক্ত প্যাকেট গুলো এমপি সেলিম ওসমানের ব্যক্তিগত তহবিল এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ী মহলের সহযোগীতায় প্রদান করা হয়।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Leave A Reply

Your email address will not be published.