মঙ্গলবার ৫ ভাদ্র, ১৪২৬ ২০ আগস্ট, ২০১৯ মঙ্গলবার

“নারায়ণগঞ্জে ‘ভিপি বাদলের’ নামে কোটি টাকার মিশনে মৌসুমী চাঁদাবাজরা” আতঙ্কিত ব্যবসায়ীরা!

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জে চলছে নীরবে মোবাইল চাঁদাবাজি।  পবিত্র রমজান মাসে ইফতার পার্টির নামে প্রতিবছরের ন্যায়র এবারও নারায়ণগঞ্জের চাঁদাবাজ চক্র সক্রিয়।  অদৃশ্য চাঁদাবাজরা এবার ডাকসাইটের রাজনীতিবিদদের নাম ভাঙিয়ে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। গতকাল সন্ধ্যার পর আমার নাম্বারে ০১৮৮২৯০১৪৪২৫ থেকে একটি কল আসে। অপর প্রান্ত থেকে হ্যালো, সালামুআলাইকুম। ভাই কেমন আছেন।
কে বলছেন?
ভিপি বাদল।
জি,ভাল আছি। ভাই তুমি কেমন আছো?
উত্তর; জী ভাই, ভাল আছি।
বাসায় ল্যান্ড ফোনে কল করেছিলাম,বুয়া ধরল মনে হল।
তো ভাই শামীম ভাই আপনাকে একটা ফোন করতে বলেছে।
তাই নাকি?
কয়োদিন আগে ফোন দিয়েছিলাম, ও তো ধরেন নি।
কোন্ নাম্বারে করেছিলেন?
বললাম নাম্বারটা।
হু, অন্য নাম্বার আছে। লেখেন ০১৯৭৭৭২৭৭৭৯
০১৭৪৬১৫২৬৫৫
ঠিক আছে। করবো।
৫ মিনিট পর আবার কল,কি ভাই ফোন করেছেন?
হ্যাঁ,করলাম তো দুটোতেই।
রিং হচ্ছে। ধরেননি।
কখনো এ্যাঙ্গেজ পাই।
ঠিক আছে পরে করবো।
তখনো সন্দেহ হয়নি! কারণ,ভিপি বদলের প্রায় কপি টোন। তবে,বেশি কোমল!
পাশে কাকে যেন শেয়ার করছিল,এই ধরছে না…কি?
এবার আসলটা বলছে; ভাই শামীম ভাইকে কিন্তু ফোন কইরেন!
বললাম,আমাকেই করতে হবে?
উত্তর; আস্তে করে আপনার ইচ্ছা!
তারপর বলেন, ভাই কাল ২৬ মে হোসিয়ারি সমিতিতে ইফতার। আসবেন কিন্তু।
ঠিক আছে চেষ্টা করবো।
এবার; ভাই, ইফতার…. কিছু যে দিতে হয়!
এতোক্ষণে অরিন্দম কহিল আসল টা!
সঙ্গেসঙ্গে লাইন কেটে দিলাম।
ভিপি বাদল তো কখনো ইফতারের চাঁদা চাওয়ার লোক নন! আমার ফোনে ওর নাম্বার সেফ করা আছে। হয়তো ডিলিট হয়ে গেছে। প্রথমে সন্দেহ হয়নি। এবার মিলিয়ে দেখি ভিপি বাদলের নাম্বার থেকে কল আসেনি।
ঘন্টা দু’য়েক পর আমি তখন বাসায়। আমার মোবাইলে আবার কল করছে। ধরছি না।  তারপর, আবার ল্যান্ড ফোনে। বুয়া রিসিভ করে বলেন,বাসায় কেউ নেই। ছেলে মেয়ে কেউ নেই? এ বিষয়ে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হলে নিরীহ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকবে।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: অপরাধ ও দুর্নীতি,নারায়ণগঞ্জের খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.