বুধবার ৫ আষাঢ়, ১৪২৬ ১৯ জুন, ২০১৯ বুধবার

ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত নেত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঘোষিত ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পরই কমিটিকে বিতর্কিত ও অবৈধ আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা।

গত ১৩ মে সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে পদবঞ্চিতদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার ঘটনা ঘটে। পরে ওই হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ নেত্রী জারিন দিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

এদিকে তাকে বহিষ্কৃত করার পরই গতকাল রাতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। পরে অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সোমবার রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে চিকিৎসা শেষে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল সংগঠন থেকে একজনকে স্থায়ীভাবে ও ৪ জনকে সাময়িক বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। এর মধ্যে জারিন দিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

পদবঞ্চিত অংশের অন্যতম সদস্য, ছাত্রলীগের বিগত কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনা-বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন জানান, গতকাল রাত সাড়ে ৯টা বা ১০টার দিকে আমাদের সঙ্গে জারিনের শেষ কথা হয়। তার মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা যায়, তিনি বাসা থেকে বেরিয়ে গেছেন।

পরে ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পারলাম, তিনি অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খেয়েছেন। আমরা তাকে খুঁজতে থাকি। পরে পুলিশের সহায়তায় নম্বর ট্র্যাকিং করে তার সন্ধান পাওয়া গেলে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ অবস্থায় জারিন দিয়াকে গতকাল রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তার ‘পাকস্থলী পরিষ্কার’ করা হয়। হাসপাতালের ৫০২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি ভর্তি ছিলেন। আজ দুপুরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: শিক্ষা

Leave A Reply

Your email address will not be published.