শুক্রবার ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ ২৪ মে, ২০১৯ শুক্রবার

জামিনে মুক্ত জয়নাল, সহসা পার পাবেনা ডিসবাবু

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: চাঁদাবাজির মামলায় জামিনের মুক্ত হয়েছেন জাতীয় পার্টি (জাপা) নেতা আল জয়নাল। রোববার (১২ মে) বিকেল সাড়ে ৫টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান জয়নাল। তবে চাঁদাবাজির মামলাসহ আরো ৪ মামলা ঘাড়ে নিয়ে কারাগারেই রয়েছেন বিতর্কিত ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ওরফে মাউরা বাবু ওরফে ডিসবাবু।

সম্প্রতি একটি ডাকাতি মামলাতেও ডিশবাবুর বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে সদর থানা পুলিশ। সেই মামলায় ধরা পড়া দুইজন জবানবন্দিতে ডিসবাবুর সম্পৃক্ততার বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছে। তাই সহজেই অনুমেয় সহসা ছাড়া পাচ্ছেনা ডিসবাবু।

গত ২৪ এপ্রিল সদর মডেল থানায় দায়েরকৃত ২০ লাখ টাকা চাঁদাবাজি মামলায় নগরীর এসএম মালেহ রোডের নিজ বাসা থেকে জাতীয় পার্টি নেতা আল জয়নালকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। স্বর্ণ ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি ফারুক বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। ১৮ দিন কারাভোগের পর জামিন পান জয়নাল।

জয়নালের পক্ষে আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপুর নেতৃত্বে প্রায় অর্ধশত সিনিয়র আইনজীবী জয়নালের পক্ষে লড়েন। অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ূন কবির, অ্যাডভোকেট বারী ভূইয়া, অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান, অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, অ্যাডভোকেট খোরশেদ মোল্লা, অ্যাডভোকেট হাবীব আল মুজাহিদ পলু, অ্যাডভোকেট আওলাদ হোসেনসহ অর্ধশত আইনজীবী জয়নালের পক্ষে লড়েন। পরিশেষে ধরা পরার পর ১৮ দিন পর জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে জামিন পান জয়নাল।

অপরদিকে গত ১৮ এপ্রিল বন্দরের ফরাজিকান্দা এলাকার ডিস ব্যবসায়ী হাসানের কাছ থেকে দশ লাখ টাকার চাঁদা দাবি করেন ডিস বাবু। চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে হাসান ডিসবাবুর বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে বন্দর থানায় একটি চাদাঁবাজি মামলা দায়ের করে। ওইদিন দুপুর আড়াইটায় সদর উপজেলার পাইকপাড়া এলাকা থেকে ডিসবাবুকে গ্রপ্তার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এরপর গত ২১ এপ্রিল মাসদাইর এলাকার সফিকুল ইসলাম কুসুম ও পশ্চিম দেওভোগ এলাকার মোক্তার হোসেন চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে ডিসবাবুর বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

এছাড়াও গত ২৮ এপ্রিল অপহরণসহ চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে ১৭ নং ওয়ার্ড এলাকার বাসিন্দা বারেক মিয়া ডিসবাবুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এছাড়া ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ওরফে মাওরা বাবু ওরফে ডিসবাবুর নামে ডাকাতির মামলায় সম্পূরক চার্জশীট গ্রহণ করে তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে সিডব্লিউ প্রেরণ করে সদর মডেল থানা পুলিশ।

২০১৩ সালের ১২ জুলাই ডাকাতির অভিযোগ তুলে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন ৯৩নং শাহসুজা রোডের জল্লারপাড় এলাকার সালাহউদ্দিন এর ভাড়াাটিয়া মো.রাজ্জাক ওরফে আঃ ছালাম (৫৮)। এছাড়া ডিসবাবুর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধীরে ধীরে ডিসবাবুর বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় জমা হচ্ছে। ডিসবাবুর নানা অপকর্ম ও কুকীর্তি প্রকাশ্যে আসছে। যার ফলে অনুমেয় ডিসবাবু সহসা কারাগার থেকে মুক্ত হতে পারছেননা।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: আইন-আদালত,নারায়ণগঞ্জের খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.