বৃহস্পতিবার ৩ শ্রাবণ, ১৪২৬ ১৮ জুলাই, ২০১৯ বৃহস্পতিবার

হজযাত্রীদের সৌদির ইমিগ্রেশনও ঢাকায় হবে

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: বাংলাদেশ থেকে এবার যারা হজে যাবেন তাদের আর সৌদি আরবে গিয়ে ইমিগ্রেশনের ঝামেলা পোহাতে হবে না, সেই আনুষ্ঠানিকতা এবার সারা হবে বাংলাদেশেই। সচিবালয়ে গতকাল শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সফররত সৌদি আরবের ইমিগ্রেশন প্রতিনিধিদল গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সেখানেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। সেখানে উভয় পক্ষ বাংলাদেশি হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সৌদি আরবের পরিবর্তে বাংলাদেশে সম্পন্ন করার বিষয়ে সম্মতি জ্ঞাপন করেন এবং উভয় দেশের কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পারস্পারিক সর্বাত্মক সহযোগিতার বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখনকার নিয়মে বাংলাদেশ বিমানের যাত্রীরা আশকোনা হজ ক্যাম্পে এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের যাত্রীরা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ অংশের ইমেগ্রেশন করেন। আসন্ন হজেও একই নিয়মে তারা হজ ক্যাম্প ও শাহজালালে বাংলাদেশের ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা সারবেন। এরপর উভয় বিমানের হজযাত্রীদের শাহজালাল বিমানবন্দরের একটি এক্সক্লুসিভ জোনে নিয়ে যাওয়া হবে। সৌদি আরবের জেদ্দায় যে ইমিগ্রেশনের কাজ হতো, তা ওই এক্সক্লুসিভ জোনেই সম্পন্ন করা হবে।

এক্সক্লুসিভ জোনের সব কার্যক্রম থাকবে সৌদি আরবের নিয়োজিত টেকনিক্যাল টিমের হাতে। দুই ধাপের ইমিগ্রেশন শেষ করে হজযাত্রীরা ফ্লাইটে উঠবেন। সৌদি আরবে পৌঁছে আর ইমিগ্রেশনের ঝামেলা থাকবে না। ফলে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের জেদ্দা বিমানবন্দরে ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা অপেক্ষা করার বিড়ম্বনা লাঘব হবে বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী।

শাহজালাল বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম ঠিকঠাক সম্পাদনের লক্ষ্যে এবার হজ ভিসার জন্য দূতাবাসে পাসপোর্ট জমা দেওয়ার আগেই দেশের আট বিভাগে প্রত্যেক হজযাত্রীর ১০ আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করা হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। ধর্মসচিব বলেন, আটটি বিভাগীয় শহরের ডিসি অফিসে আঙুলের ছাপ সংগ্রহের জন্য বিশেষ কর্নার খোলা হবে। সৌদি কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা সেখানে দায়িত্ব পালন করবেন।

এবার আর হজযাত্রীদের কোনো অসুবিধার মুখোমুখি হতে হবে না— এমন আশা প্রকাশ করে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, অন্যবারের থেকে সুবিধাজনক অবস্থানে এবার বাংলাদেশি হজযাত্রীদের জন্য বাড়ি ভাড়া করা হয়েছে। তারা কষ্ট পাবেন— এটা আমরা কিছুতেই হতে দেব না।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১০ আগস্ট হজ হতে পারে। এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন। সৌদি হজমন্ত্রী বাংলাদেশের জন্য অতিরিক্ত ২০ হাজার কোটা বাড়ানোর বিষয়টি রয়্যাল কেবিনেটে উপস্থাপন করার আশ্বাস দিয়েছেন বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। অন্যদের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং হাবের প্রতিনিধিরা এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.