বৃহস্পতিবার ১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ বৃহস্পতিবার

পুলিশের ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড বাতিল

বিশেরবাঁশী ডেস্ক: পুলিশের অপারেশনাল কাজে ব্যবহারের জন্য বিদেশ থেকে আনা ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড বাতিল করে দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়। দক্ষিণ কোরিয়া থেকে এসব সাউন্ড গ্রেনেড আনা হয়েছিল। সাউন্ড গ্রেনেডের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এগুলো মানহীন। দরপত্রে উল্লেখ করা গুনাগুনের সঙ্গে কোন মিল নেই। সাউন্ডগুলো বাতিল করে তা দক্ষিণ কোরিয়ায় ফেরত দেয়া হয়। বাতিল হওয়া সাউন্ড গ্রেনেডগুলোর স্থানে পুনরায় ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড সরবরাহের নির্দেশ দেয়া হয়।

পুলিশ সদর দফতরের একটি সূত্র জানায়, গত বছর ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড ক্রয়ের জন্য দরপত্র দেয়া হয়। ধানমন্ডির এক্সেল টেকনলজি নামে একটি প্রতিষ্ঠান ৩ কোটি ৯৪ লাখ ২৯ হাজার টাকার বিনিময়ে এই ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড সরবরাহের দরপত্র পায়। দক্ষিণ কোরিয়ার ডাকওয়াং কেমিকেল কোম্পানী নামে প্রতিষ্ঠানটি এই সাউন্ড গ্রেনেড উৎপাদন করবে। দরপত্র অনুযায়ি গত বছরের ২২ নভেম্বর পুলিশের কাছে ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড পৌঁছানো হয়।

পুলিশ সদর দফতরের অপর এক সূত্র জানায়, খিলক্ষেতের পুলিশ অফিসার্স হাউজিং সোসাইটির মাঠে সাউন্ড গ্রেনেডের নমুনা ফায়ারিং পরীক্ষা করা হয়। সাউন্ড গ্রেনেড বিস্ফোরিত হলেও এতে শব্দের কম্পনমাত্রা অনেক কম। দরপত্রে উল্লেখ করা কারিগরি নির্দেশনার সাথে সরবরাহ করা সাউন্ড গ্রেনেডের কোন মিল নেই। পরীক্ষা কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ি চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি পুলিশ সদর দফতর সরবরাহকৃত সাউন্ড গ্রেনেড বাতিল করে দেয়।

পরবর্তীতে দক্ষিণ কোরিয়ায় সাউন্ড গ্রেনেড উৎপাদনকারী ডাকওয়াং কেমিক্যাল কোম্পানীর সঙ্গে পুলিশ সদর দফতর বেশ কয়েকবার চিঠি চালাচালি করে। প্রতিষ্ঠানটি ক্রুটিপূর্ণ সাউন্ড গ্রেনেড উৎপাদনের জন্য পুলিশ সদর দফতরের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে। পুনরায় তারা মান সম্পন্ন ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেড উৎপাদন করে বাংলাদেশে সরবরাহ করতে চায়। এরই প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের পুলিশ অধিশাখা-৪ এর সিনিয়র সহকারী সচিব খাদিজা তাহেরা ববি গত ২৮ আগস্ট জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, আমদানি ও রফতানি নিয়ন্ত্রন দপ্তরের প্রধান নিয়ন্ত্রক ও পুলিশের আইজি’র কাছে চিঠি দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত মালামাল একই চুক্তিপত্র এবং একই এলসি’র বিপরীতে পুন:স্থাপন (রিপ্লেস) করা হবে। এর আগে এই ১০ হাজার সাউন্ড গ্রেনেডের জন্য কাস্টমস ডিউটি, সিডি ভ্যাট ও অন্যান্য শুল্ক ও কর পরিশোধ করা হয়েছে। বাতিলকৃত মালামাল দক্ষিণ কোরিয়া পাঠানো হয়েছে। পুন:স্থাপন (রিপ্লেস) করা মালামাল হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর অথবা চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর হতে খালাসের সময় কোন শুল্ক গ্রহণ বা অন্য কোন সমস্যা সৃষ্টি না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বিশেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/ইলিয়াছ

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.