শুক্রবার ২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ শুক্রবার

কোথায় নিরাপদ সড়ক!

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের গন্ধ এখনো জড়িয়ে আছে বাতাসে। আন্দোলন নিয়ে কথামালার রাজনীতি হয়েছে। মানুষকে শুনতে হয়েছে অনেক কথকতা। তারপর, অব্যক্ত এক আশাবাদ বুকে নিয়ে ফিরে গেছে যে যার গন্তব্যে। আন্দোলনকালীন সকল আশ্বাসের প্রতি সম্মান দেখিয়েছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। তারা বিশ্বাস করতে চেয়েছিল, মনে করেছিল, তাদের অভিভাবকরা যখন কথা দিয়েছেন—এর একটা ইতিবাচক ফলাফল তারা পাবে।

বাংলা সাহিত্যের প্রখ্যাত কথাশিল্পী ও কবি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় তার এক কবিতায় বলেছেন, ‘তেত্রিশ বছর কাটলো, কেউ কথা রাখেনি।’ আর আমরা বলছি, ‘সাতচল্লিশ বছর কেটে গেল, কেউ কথা রাখেনি’।

সাম্প্রতিক সময়ে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে নানা উদ্যোগের পরও দেশের সড়ক-মহাসড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছে না। গত শনিবার শুধু নাটোরেই সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১৫ জন। নাটোর-পাবনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আর গত শনিবার থেকে রোববার পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান ৩০ জন। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির হিসাব মতে, ঈদুল ফিতরে বাড়ি ফেরার সময় ২০১৬ সালে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে ১২১টি। এতে নিহত হয়েছিলেন ১৮৬ জন ও আহত ৭৪৬। ২০১৭ সালে ২০৫টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা ছিল ২৭৪ জন। একই সময়ে আহতের সংখ্যা ছিল ৮৪৮। আর চলতি বছর ঈদুল ফিতরের ছুটির সময় সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল ২৭৭টি। নিহত ৩৩৯ জন এবং আহত হয়েছিলেন ১ হাজার ২৬৫ জন।

ঠিক এ রকম একটি সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান কাঁধে নিয়ে চলেছে স্বদেশ। বিষয়টি নিয়ে কারো যেন ভাববার তেমন একটা সময় অথবা প্রয়োজন নেই। অথবা বলা যায়, যাদের ভাববার কথা তারা বিষয়টিকে জীবিত রাখার কথাই ভাবছেন। ভাবছেন লাভ-লোকসানের কথা। জীবিত থাকলেই বোধহয় লাভের অঙ্কটা বেশি। তাই দুর্ঘটনায় মানুষ মরলে আপত্তি নেই। আপত্তি; দুর্ঘটনা কমে এলে। মৃত্যুর সংখ্যা কমে গেলে। ভাবনাটা নেতিবাচক হলেও এভাবেই ভাবতে হচ্ছে সকলকে। বাস্তবতা আজ তাদেরকে ভাবতে বাধ্য করছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনও শেষ পর্যন্ত বোধের দরোজা খুলে দিতে ব্যর্থ হলো। কিন্তু আমরা তো আর এভাবে ভাবতে চাই না। কোমলমতিদের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে বলতে চাই, ‘নিরাপদ সড়ক দাও’।

একটি বিষয় মনে রাখা খুবই জরুরি যে, ‘যে জাতি তার শিশুদের সম্মান দিতে জানে না, সে জাতি কোনো বীরের জন্ম দিতে পারে না’। তবে কি আমাদের ঔরষে আর কোনো বীরের জন্ম হবে না

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: খোলা বাতায়ন,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.