বৃহস্পতিবার ৪ শ্রাবণ, ১৪২৫ ১৯ জুলাই, ২০১৮ বৃহস্পতিবার

শেখ হাসিনা শ্রমিক বান্ধব : না.গঞ্জে চুন্নু

বিশেরবাঁশী ডেস্ক: শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিক বান্ধব। তিনি শ্রমিকদের প্রতি অনেক বেশি সহানুভূতিশীল। নারীদের কল্যাণের জন্য তিনি অনেক কাজ করেছেন। নারীদের কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আধুনিক সুযোগ সুবিধা সহ শ্রমজীবী হোস্টেল তৈরির ব্যবস্থা করছেন। গ্রামীণ কাঠামোর সামাজিক পরিবর্তন এনে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৭ জুলাই শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সেন্ট্রাল খেয়াঘাটে শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্বপাড়ে ময়মনসিংহ পট্টিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বন্দরে মহিলা শ্রমজীবী হোস্টেল এবং ৫ শয্যা হাসপাতালের সুবিধাসহ শ্রম কল্যাণ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মজিবুল হক চুন্নু আরো বলেন, আজকের অনুষ্ঠানের আরেকটি বৈশিষ্ট হচ্ছে এটি সর্বদলীয় প্রোগ্রাম। এখানে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির সকলেই এসেছেন। এটা ভাল পরিবেশ। এটাই হওয়া উচিত। উন্নয়নের স্বার্থে সবাই এক। আমি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বেশি সহযোগিতা পেয়েছি শুক্কুর মাহমুদের।এজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই। শ্রম অধিদপ্তরের জমির উপর ৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হাসপাতাল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগষ্টের প্রথম সপ্তাহ থেকেই এই হাসপাতালের নির্মাণ কাজ শুরু হবে। আমি চাই এই হাসপাতালের নাম হবে শামসুজ্জোহা শ্রমজীবী বিশেষায়িত হাসপাতল।

মজিবুল হক চুন্নু আরো বলেন, আজকের অনুষ্ঠানের আরেকটি বৈশিষ্ট হচ্ছে এটি সর্বদলীয় প্রোগ্রাম। এখানে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির সকলেই এসেছেন। এটা ভাল পরিবেশ। এটাই হওয়া উচিত। উন্নয়নের স্বার্থে সবাই এক। আমি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বেশি সহযোগিতা পেয়েছি শুক্কুর মাহমুদের। এজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।

শ্রম অধিদপ্তরের জমির উপর ৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হাসপাতাল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগষ্টের প্রথম সপ্তাহ থেকেই এই হাসপাতালের নির্মাণ কাজ শুরু হবে। আমি চাই এই হাসপাতালের নাম হবে শামসুজ্জোহা শ্রমজীবী বিশেষায়িত হাসপাতল। এসময় তিনি শ্রমিকদের জন্য কল্যান ফান্ডের কথা উল্লেখ করে বলেন যেকোন শ্রমিক কর্মক্ষেত্রে মারা গেলে তার পরিবার ২ লাখ টাকা পাবে। এছাড়া ক্যান্সার আক্রান্ত শ্রমিক পাবে ২ লাখ টাকা। গার্মেন্ট শ্রমিক ফান্ডে রয়েছে ৫০ কোটি টাকা। কোন গার্মেন্ট শ্রমিকের সন্তান জিপি ৪.৫ পেলে তার পড়াশুনার খরচ দেয়া হবে।

কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম
ওসমান আরো উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসেনে আরা
বাবলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, বন্দর উপজেলা
চেয়ারম্যান ও মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল, জেলা জাতীয়
পার্টির আহবায়ক আবু জাহের, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ
চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, শহর যুবলীগের সভাপতি
শাহাদাত হোসেন সাজনু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হকে নিপুসহ
বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি ও সরকারী কর্মকর্তারা।

বিশেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/ইলিয়াছ

Categories: জাতীয়,নারায়ণগঞ্জের খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.