বুধবার ৪ আশ্বিন, ১৪২৫ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ বুধবার

কালবৈশাখী ঝড় কেড়ে নিয়েছে অসহায় গৃহবধুর মুখের হাসি

বিশেরবাঁশী ডেস্ক: নওগাঁর ধামইরহাটে সম্প্রতি হয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড় যেন কেড়ে নিয়ে এক গৃহবধুর মুখের হাসি। প্রায় দেড় লাখ টাকা খরচ করে স্বামীর পাঠানো টাকা দিয়ে আধা পাকা বাড়ি নির্মান করেছিলেন উপজেলার হরিতকীডাঙ্গা গ্রামের সেকেন্দার আলীর স্ত্রী এস্তেন বানু। মে মাসে ২য় সপ্তাহে হয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে গৃহবধু এস্তেন বানুর ১৮ বান্ডিল ঢেউটিন, ইট-বালি ও সিমেন্ট দিয়ে ঘরে টিনের ছাউনি দেওয়ার পর পরই কাল হয়ে দাড়ালো আকস্মিক সেই ঝড়। এতে এস্তেনবানুর সকল টিন দুমড়ে-মুচড়ে উড়ে যায় এবং ইটের পাষ্টার ভেঙ্গে যায়। নতুন তৈরী করা এই ঘরের দৃশ্য দেখে মুখের হাসি বিসর্জণ দিয়েছেন গৃহবধু এস্তেন বানু। নিজের ক্ষতির বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিক ও পার্শ্ববর্তী কাউকে বলতেই যেন পারেনি। ১০/১২ দিন পর শুক্রবার সকালে ঘটনা সরেজমিন দেখতে যান স্থানীয় সাংবাদিকরা। বিষয়টি তাৎক্ষনিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভুইয়াকে জানালে তিনি হুইপ মহোদয়ের বিশেষ ত্রান তহবিল থেকে গৃহবধুর পাশে দাড়ানোর আশ্বাস দেন। গৃহবধুর স্বামীর ঢাকার একটি প্রাইভেট কোম্পানীকে নামমাত্র বেতনে চাকরি করেন এবং তার একমাত্র মেয়ে দন্ত চিকিৎসক হিসেবে ঢাকায় বর্তমান ইন্টার্ণী করছেন, এক বেলা না খেয়ে দিনের পর দিন যেন শুধু মাত্র একমাত্র মেয়ের সুখের জন্যই এস্তেন বানুর স্বপ্ন। অনেক কষ্টে তৈরী করা ঘরের জন্য গৃহবধু এন্তেন বানু সরকারী সহায়তা প্রার্থনা করেছেন।

বিশেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/ইলিয়াছ

Categories: সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.