মঙ্গলবার ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ ২০ নভেম্বর, ২০১৮ মঙ্গলবার

দেশে তৈরি ২৫ হাজার কোটি টাকার সুতা-কাপড় অবিক্রীত

বিশেরবাঁশী ডেস্ক: বন্ড সুবিধায় আমদানি করা সুতা অবৈধভাবে বাজারে প্রবেশ করায় দেশে তৈরি প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার সুতা-কাপড় অবিক্রীত রয়েছে। ফলে স্থানীয় বাজারের জন্য সুতা ও কাপড় উৎপাদনকারী স্পিনিং ও উইভিং মিলগুলো সংকটের মধ্যে পড়েছে।

বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) তথ্যমতে, বাংলাদেশে স্পিনিং খাতে বর্তমানে ৪২৫টিরও বেশি মিল রয়েছে। এছাড়া উইভিং মিল রয়েছে ৮০০টি। মিলগুলো রফতানির উদ্দেশ্যে সুতা ও কাপড় উৎপাদন ছাড়াও দেশের মানুষের বস্ত্র চাহিদা পূরণ করছে। কিন্তু বর্তমানে আমদানি শুল্ক ও কর ফাঁকি দিয়ে বিপুল পরিমাণ সুতা বাজারে প্রবেশের ফলে স্থানীয় মিলগুলোয় উৎপাদিত সুতা অবিক্রীত থেকে যাচ্ছে। এতে গত কয়েক মাসে মিলগুলোয় ২৫ থেকে ৩০ হাজার কোটি টাকার সুতা ও কাপড় অবিক্রীত রয়েছে। বিটিএমএর সহসভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন বলেন, আমাদের উৎপাদন সক্ষমতার ৪০ শতাংশ এখন অবিক্রীত আছে। ২৫ থেকে ৩০ হাজার কোটি টাকার পণ্য আমাদের স্টকে আছে। গত জানুয়ারি থেকে পর্যায়ক্রমে এই স্টকগুলো হয়েছে।

বিটিএমইএর অভিযোগ, পলিয়েস্টার ও ভিসকস সুতা, বিভিন্ন প্রকারের মিশ্রিত সুতা ও ২৪ থেকে ৮০ কাউন্টের সুতা কতিপয় বন্ড লাইসেন্সধারী শিল্পপ্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানি হচ্ছে। এরপর এগুলো নারায়ণগঞ্জ, মাধবদী, বাবুরহাট, নরসিংদী, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অবাধে বিক্রি হচ্ছে। ফলে স্থানীয় স্পিনিং মিলে তৈরি সুতা অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকৃত সুতার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছে না।

বিশেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/ইলিয়াছ

Categories: খোলা বাতায়ন,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.