রবিবার ৮ আশ্বিন, ১৪২৫ ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রবিবার

কোটার আন্দোলন মেনে নিয়েছি, আর কথা কেন: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোটা সংস্কার নিয়ে আন্দোলন হয়েছে; সেটা মেনেও নিয়েছি। কোটার দরকার নেই। এখন আর এটা নিয়ে কথা কেন?

বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেওয়ার পর প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া সফর সম্পর্কে জানাতেই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশে যত উন্নয়ন হয়েছে সব আমরা সরকারে আসার পরই হয়েছে। তারপরও কোটা নিয়ে আন্দোলনকারীরা বলেছে- তারা কোটা চায়না। আমি এটা মেনে নিয়েছি। এটা নিয়ে আর কথার কি আছে?

কোটা সংস্কার আন্দোলন প্রসঙ্গে এক সাংবাদিকের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখন তারা আন্দোলন করলো, সবাই যখন এমন সোচ্চার হয়ে পড়ল, কেউ তাদের থামাতে চেষ্টা করেনি। যারা আন্দোলন করেছে; তাদের মধ্যে কারা মিশে যাচ্ছে তা নিয়ে কিছু বলতে দেখিনি।

তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা অংশগ্রহণ করেছিলনে জাতির পিতার তাদের জন্য এ পদ্ধতির ব্যবস্থা করেছিলেন। কোটা চাই না বলে- হঠাৎ আন্দোলন শুরু হলো। যানজট হলো। রাস্তা দখল করে আন্দোলন হলো।

শেখ হাসিনা বলেন, কোটা পদ্ধতি ছাত্রদের বিষয় নয় সরকারের নীতি র্নিধারণের বিষয়। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নামকাওয়াস্তে খরচে ছাত্ররা পড়াশুনা করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্বায়ত্ত্বশাসিত হলেও সেখানে সরকারিভাবে সমস্ত খরচ চালানো হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭৫ সালের পর কোনও মুক্তিযোদ্ধা কি চাকরি পেয়েছেন? জিয়াউর রহমান কাদের নিয়ে সরকার গঠন করেন; যারা যুদ্ধাপরাধী তাদের নিয়ে।

তিনি বলেন, যেহুতু জাতির পিতা দিয়েছিলেন সরকারে এসে তাই কোটা পদ্ধতি আমি রেখে দিয়েছিলাম। সেটা নিয়ে যেসব কথাবার্তা বলা হয়েছে; মুক্তিযোদ্ধাদের নানা অসম্মান করা হয়েছে, আমার পক্ষে তা মেনে নেওয়া সম্ভব না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জেলা কোটা। কোনও কোনও জেলা থেকে কোটা আছে বলেই অনেকে চাকরি পেয়েছে। আমি বলে দিয়েছি; যে সমস্ত কোটা পূরণ না হবে তা মেধা থেকে পূরণ করা হবে। আমি লিখে দিয়েছিলাম, ৭৭ শতাংশ পর্যন্ত মেধা থেকে পূরণ হেযছে। যারা কোটা পাচ্ছে তারাও তো মেধাবি। পাশ করার পরই তো কোটা থেকে নেওয়া হয়েছে।

তিন বলেন, তারপরও যখন এত আন্দোলন, এত কিছু। ঠিক আছে আমি মেনে নিয়েছি। আমি বললাম সব কোটা বন্ধ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্দোলনকারীদের পাঁচ দফা দাবি আমি দেখেছি। তারা (আন্দোলনকারী) আমার নাতির বয়সী। যা চেয়েছে তা করে দিয়েছি। কোটার দরকার নেই। আন্দোলনে কারা কারা ছিল তাও দেখব।

Categories: জাতীয়

Leave A Reply

Your email address will not be published.