বুধবার ৩ শ্রাবণ, ১৪২৫ ১৮ জুলাই, ২০১৮ বুধবার

রেলওয়ে নিরাপত্তার ৩ সদস্যকে কুপিয়ে জখম

নিউজ২৪ ডেস্ক: শনিবার রাতে দর্শনা রেলস্টেশনের অদূরে চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় আন্তর্জাতিক রেলওয়ে ইয়ার্ডে ওয়াগন থেকে মালামাল চুরির সময় নিরাপত্তা বাহিনী বাধা দিলে ডাকাতচক্র জসিম বাহিনীর সদস্যদের ধারালো অস্ত্রের কোপে তিন সদস্য গুরুতর জখম হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ার তাদেরকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। অপরজনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। আহতরা হলেন- চুয়াডাঙ্গা দর্শনা রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, সনজিত কুমার সরকার ও আনসার বাহিনীর সদস্য হাফিজুর রহমান। রাতেই ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দর্শনার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- দর্শনার শান্তি পাড়ার চোরচক্র বাহিনীর প্রধান ও হত্যাসহ ১০টি মামলার আসামি মৃত টুকুর ছেলে জসিম উদ্দীন (২৫), মৃত ওয়াসিমের ছেলে সুজন (১৩), মৃত আলতাবের ছেলে গাফফার (৫৫), পরানপুর বেলে মাঠ পাড়ার মৃত হুমায়ুন কবীরের ছেলে রাশেদুল (১৬) ও মৃত নুরুল হকের ছেলে হারুনুর রশিদ (৩৯)।

দামুড়হুদা থানার ওসি আকরাম হোসেন জানান, শনিবার রাত ৯টার দিকে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা রেলওয়ে স্টেশনের অদূরে মালবোঝাই মালবাহী ট্রেন পাহারা দেওয়ার সময় ডাকাতচক্রের বাহিনী প্রধান জসিমসহ তার ৭/৮ সদস্য নিয়ে মালবাহী ট্রেনে ডাকাতির জন্য আসেন।

এ সময় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা ডাকাতচক্রের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। ডাকাতচক্রের সদস্যরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে নিরাপত্তা ও আনসার বাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা চালান। হামলার সময় চোররা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর তিন সদস্যকে রক্তাক্ত জখম করেন। তাদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।

আহতদের মধ্য আব্দুর রাজ্জাক ও হাফিজুর রহমানের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন। শ্রী শনজিত কুমার সরকারকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে।

নিউজ২৪ ডেস্ক/সংবাদদতা/হৃদয়

Categories: অপরাধ ও দুর্নীতি

Leave A Reply

Your email address will not be published.