শনিবার ৭ আশ্বিন, ১৪২৫ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ শনিবার

সামাদ মতিনের নেতৃত্বে পলাশের বিরুদ্ধে ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের বিক্ষোভ

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: জাতীয় শ্রমিক লীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যান বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব কাউসার আহম্মেদ পলাশকে চিহৃিত চাদাঁবাজ ও গডফাদার বললেন ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ।

রোববার (৮ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা-ফতুল্লা-নারায়নগঞ্জ পুরাতন সড়কে পলাশ কর্তৃক সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে ফতুল্লা প্রেস ক্লাব আয়োজিত এক প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সভায় বক্তব্যকালে তারা এই মন্তব্য করেন। ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম এ সামাদ মতিনের সভাপতিত্বে উক্ত প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ ওবায়েদ উল্ল্যাহ্, প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক আঃ রহিম, মোঃ সেলিম মুন্সী, সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ আলীম লিটন, কার্যকরী সদস্য মোঃ মনির হোসেন, নিয়াজ মোহাম্মদ মাসুৃম, শাকিল আহম্মেদ ডিয়েল, জাহাঙ্গীর হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন ডালিম, প.ম আজিজ।

ফতু্ল্লা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ ওবায়েদ উল্ল্যাহ্ তার বক্তব্যে বলেন, আলীগঞ্জের শ্রমিক নেতা পলাশ একজন চাদাঁবাজ। সে প্রকাশ্যে তার কয়েক জন ঘনিষ্ঠ লোকদের মাধ্যমে বিভিন্ন সেক্টর থেকে চাদাঁবাজী করছে। পলাশের বিরুদ্ধে গত ৩ এপ্রিল জাতীয় দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় প্রকাশিত “নারায়নগঞ্জে আরেক নূর হোসেন ও ফতুল্লার গডফাদার পলাশ ও তার ৪ খলিফা “শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল তার শতভাগ সত্য বলে তিনি দাবী করেন। তিনি আরো বলেন, পলাশ সত্যকে আড়াল করতে এবং পেশাদার সাংবাদিকদের হয়রানী করতে মানহানির মামলা করেছে। ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে সৈয়দ ওবায়েদ উল্ল্যাহ্ আরো বলেন, পলাশ তার লোকজনদের দিয়ে ফতুল্লার বিভিন্ন সড়কে ও সেক্টরে যেভাবে চাদাঁবাজী করছে সেটা যদি বন্ধ না করে তবে আমরা (সাংবাদিক) এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে এর বিরুদ্ধে মাঠে নামবো বলে তিনি হুশিয়ারী দেন।

ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের বর্তমান সভাপতি এম সামাদ মতিন তার বক্তব্যে বলেন, যুগান্তর পত্রিকায় পলাশের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের পরের দিন ৪ এপ্রিল বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় পলাশের লোকজন ঢাকা-ফতুল্লা-নারায়নগঞ্জ পুরাতন সড়কের পুলিশ লাইন পর্যন্ত যান বাহনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সাংবাদিক আল আমিন প্রধানের নাম উল্লেখ্য করে যেই কুরুচীপূর্ন শ্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছিলেন। সেই মিছিলের প্রথম সারিতে নেতৃত্ব দেওয়া পলাশ অনুসারী মোল্লা মামুন একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী, তার বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। তিনি আরো বলেন, পলাশ অনুসারী মাদক ব্যবসায়ী মোল্লা মামুন সহ অন্যরা সেই বিক্ষোভ মিছিলে সাংবাদিক আল আমিন প্রধানের চামড়া তুলে নেব আমরা সহ বিভিন্ন হুমকি মূলক শ্লোগান দিয়ে প্রান নাশের হুমকি দিয়েছে শতেক খানেক লোক প্রকাশ্য দিবালোকে এতে কি প্রমানিত হয় না যে পলাশ গডফাদার? তিনি সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছে তার বক্তব্যে। উক্ত প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিলে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মহাসিন আলম, মাসুদ আলী, সাংবাদিক দুলাল হোসেন, মুন্না, শেখ মোঃ সেলিম।

বিষেরবাঁশী.কম/ সংবাদদাতা/ হীরা

Categories: নারায়ণগঞ্জের খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.