বৃহস্পতিবার ৪ শ্রাবণ, ১৪২৫ ১৯ জুলাই, ২০১৮ বৃহস্পতিবার

আজ জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস

 

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: আজ ষষ্ঠতম জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৫৭ সালের আজকের এই দিনে তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদে চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (এফডিসি) গঠনের প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এই দিনকে স্মরণ করে ২০১২ সালে প্রথমবার জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস উদযাপন করা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় প্রতি বছরের মতো এ বছরও উদযাপন করা হবে দিনটি। সেইসঙ্গে উদযাপিত হবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) প্রতিষ্ঠা দিবসও। এ উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। দিনটি উপলক্ষে এফডিসি কর্তৃপক্ষ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। থাকছে শোভাযাত্রা, চলচ্চিত্র মেলা, স্থিরচিত্র প্রদর্শনী, সেমিনার, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, স্মরণিকা প্রকাশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আজ সকাল সাড়ে ৯টায় এফডিসি চত্বরে মূল মঞ্চে চলচ্চিত্র দিবসের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে গুণী অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমামের। এ সময় প্রধান অতিথি থাকবেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

বেলা ১১টায় এফডিসি থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হবে। এতে অংশ নেবেন চলচ্চিত্র শিল্পী ও কলাকুশলীরা। বেলা সাড়ে ১১টায় মেলার উদ্বোধন করা হবে। দুপুর ১২টা থেকে চলবে চলচ্চিত্র মেলা, স্থিরচিত্র প্রদর্শনী, সেমিনার, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। বিকেল ৩টায় এফডিসির ৮ নম্বর ফ্লোরে অনুষ্ঠিত হবে সেমিনার। সন্ধ্যায় এফডিসি চত্বরে শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও এ দিবসকে ঘিরে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র সংগঠনের মধ্যে রয়েছে নানা বিভক্তি। বিশেষ করে চলচ্চিত্রকর্মীদের সমন্বিত সংগঠন ‘চলচ্চিত্র স্বার্থ সংরক্ষণ কমিটি’ আলাদাভাবে চলচ্চিত্র দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যদিকে এফডিসি আলাদাভাবে চলচ্চিত্র দিবস পালন করছে।

এদিকে প্রথমে সর্বসম্মতিক্রমে বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা সৈয়দ হাসান ইমামকে এবারের উৎসব উদযাপনের জাতীয় কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। কিন্তু ২৭ মার্চ বিএফডিসির এমডি আমীর হোসেন মোবাইলে কল দিয়ে সৈয়দ হাসান ইমামকে এই পদে না থাকার জন্য অনুরোধ করেন। কারণ হিসেবে তিনি ওপর মহলের আদেশ আছে বলে জানান। এ খবর শুনেই চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। তারা সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের এমডিকে নিয়ন্ত্রণ করা তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর পদত্যাগ চেয়েছেন। সেখান থেকেই এ উৎসব নিয়ে বিভক্তির সূত্রপাত।

‘চলচ্চিত্র দিবস পালন নিয়ে যে দ্বিধাদ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে, তার কোনো সমাধান হয়েছে কি? জানতে চাইলে এফডিসির এমডি আমীর হোসেন জানান, আমি কোনো ঝামেলা দেখি না। দিবসটি পালনে সব ধরনের আয়োজন চলছে। এ উৎসবে প্রতিবারের মতো এবারও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত থাকবেন। তিনি আরো জানান, সবাই মিলেই চলচ্চিত্র দিবস পালন করব, এটাই সত্যি। প্রতি বছর যেভাবে চলচ্চিত্র দিবস পালিত হয়, আমরা সেভাবেই পালন করার চেষ্টা করছি।

এদিকে আলাদাভাবে চলচ্চিত্র দিবসের আয়োজন করার কথা জানিয়ে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘আমরা হাসান ইমাম ভাইয়ের নেতৃত্বে আলাদাভাবে চলচ্চিত্র দিবসের আয়োজন করেছি। চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট সব শিল্পী ও কলাকুশলীরা জাতীয় চলচ্চিত্র দিবসের দিন সকাল থেকেই এফডিসিতে থাকবেন। বেলুন, পায়রা উড়িয়ে সবাই মিলে র‌্যালি করব। তা ছাড়া এফডিসি চত্বরের ঝরনাস্পটে আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পীদের নিয়ে থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সরকারিভাবে আয়োজনের বিষয়ে জায়েদ খান বলেন, তাতে আমাদের কোনো অসুবিধা নেই। যেখানে শিল্পী ও কলাকুশলীদের সম্মান থাকে না, সেখানে আমরা কোনোভাবেই যাব না।

তবে গতকাল দুপুর ১২টা নাগাদ এফডিসির প্রশাসনিক ভবনে চলচ্চিত্র শিল্পীদের নামের লিপিবদ্ধ আমন্ত্রণপত্রগুলো দেখে এ বিষয়ে জনসংযোগ কর্মকর্তা হিমাদ্রি বড়ুয়াকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি প্রতিদিনের সংবাদকে জানান, আমরা চলচ্চিত্র দিবস পালন উপলক্ষে এফডিসির আয়োজনে সঙ্গে থাকার জন্য শিল্পীদের নামে লিখিত আমন্ত্রণপত্র নিয়ে শিল্পী সমিতিতে গিয়েছিলাম, কিন্তু তা গ্রহণ করেননি শিল্পী সমিতি। তবে চলচ্চিত্র দিবস পালন করতে গিয়ে এমন ঘটনা এর আগে ঘটেনি। এবারই প্রথম এমন দ্বিধাদ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়েছে।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক/সংবাদদাতা/মিতু

Categories: বিনোদন

Leave A Reply

Your email address will not be published.